তান্ত্রিকের পরামর্শ। তাই সকাল, বিকাল লাড্ডু ছাড়া স্বামীকে কিছুই খেতে দিতে না স্ত্রী। গণ্ডায় গণ্ডায় লাড্ডু খেয়ে অবশেষে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন সেই স্বামী। স্ত্রীর বিরুদ্ধে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা দায়ের করেছেন তিনি। 

এমনই অভিনব কারণে ডিভোর্সের মামলা দায়ের হয়েছে উত্তর প্রদেশের মিরাটের একটি আদালতে। একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, স্ত্রী তাঁকে লাড্ডুর বাইরে অন্য কিছু খেতে দিচ্ছেন না, এই অভিযোগেই বিবাহবিচ্ছেদ চেয়েছেন ওই ব্যক্তি। 

স্বামীর অভিযোগ, এক তান্ত্রিকের পরামর্শেই তাঁর জন্য এমন 'ডায়েট' চালু করেছিলেন তাঁর স্ত্রী। প্রতিদিন সকালে চারটে এবং বিকেলে আরও চারটে লাড্ডু খেতে দেওয়া হত তাঁকে। স্বামীর অভিযোগ, এর বাইরে আর কোনও খাবারই দেওয়া হতো না তাঁকে। শেষ পর্যন্ত আদালতে মামলা দায়ের করে স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ চেয়েছেন তিনি। 

কিন্তু কেন স্বামীর জন্য তান্ত্রিকের দ্বারস্থ হলেন স্ত্রী? ওই ব্যক্তির দাবি, তিনি বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ থাকাতেই তাঁকে সুস্থ করতে তান্ত্রিকের দ্বারস্থ হন স্ত্রী। তখনই তাঁর জন্য দু' বেলায় মোট আটটি লাড্ডু বরাদ্দ করেন ওই তান্ত্রিক। 

জানা গিয়েছে, দশ বছর আগে ওই দম্পতির বিয়ে হয়েছিল। তাঁদের তিনটি সন্তানও রয়েছে। কিন্তু সুখের সংসারে ভাঙন ধরালো লাড্ডু। বিবাহবিচ্ছেদের কারণ শুনে ফ্যামিলি কাউন্সিলিং সেন্টারের সদস্যরাও বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছেন।