মহম্মদ পাশা, জোল্লু নবীন, জোল্লু শিবা ও চেন্নাকেসাভুলু - এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে ঘৃন্য চারটি নাম। সকলের চোখে তারা পিশাচ। কেউ বলছেন জনসমক্ষে ফাঁসি দেওয়া হোক, কেউ বলছেন ফাঁসি-টাসি নয়, জনগণের হাতেই তুলে দেওয়া হোক। আবার নির্যাতিতা দিশার মা বলেছেন, তাঁর মেয়ের মতোই দোষীদের পুড়িয়ে মারা হোক। কিন্তু এই অভিযুক্তদের মা, তাঁরা কি বলছেন?

একদিকে তাঁরা মা, মহিলার যন্ত্রণা তাঁরা বোঝেন। আবার দোষী তাঁদের নিজেদের সন্তান। এই দোলাচলতার অবস্থানে তাঁরা কী বলছেন? সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলেছেন দুই অভিযুক্ত - চিন্নাকেশাভুলু ও জোল্লু শিবার মা। এই জঘন্য কাজে তাঁদের সন্তানরা জড়িত শুনে প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারেননি তাঁরা। তবে যদি সত্যিই তারা এই কাজ করে থাকে তবে দুই মা-ই জানিয়েছেন, কর্তৃপক্ষের তাদের যথাযথ শাস্তি প্রদান করা উচিত।

চেন্নাকেসভুলুর মা জানিয়েছেন, তাঁর নিজেরও একজন কন্যা সন্তান রয়েছে। কাজেই, তিনি বুঝতে পারছেন দিশার বাবা-মা'এর অবস্থাটা। তিনি আরও বলেছেন,  যা শাস্তি উপযুক্ত মনে করবে কর্তৃপক্ষ, চিন্নাকেশাভুলুদের  সেই শাস্তিই দেওয়া উচিত। তবে তাঁর দাবি, গত ছয় মাস ধরে তাঁর ছেলে অসুস্থ। তাই সে কোনও কাজকর্ম নিচ্ছিল না। চিন্নাকেশাভুলুর পরিবারের আরেক সদস্য বলেছেন যে এই ঘটনার পরে তারা ঘরের বাইরে বের হতে পারছেন না। কারোর কাছে মুখ দেখাতে পারছেন না।

অপর অভিযুক্ত জোল্লু শিবার মা-ও বলেছেন এই জঘন্য অপরাধের জন্য তাঁর ছেলেকে কড়া শাস্তি দেওয়া উচিত। তিনি বলেছেন, 'আপনারা যা খুশি শাস্তি দিতে পারেন ওকে। ঈশ্বর সব জানেন, সব দেখেছন।'