ভারতীয় বায়ুসেনা পেল প্রথম অ্যাপাচি গার্ডিয়ান অ্যাটাক হেলিকপিটার।  শুক্রবার মার্কিন সরকারের বোয়িং সংস্থাটি ভারতের হাতে হেলিকপ্টারটি তুলে দিয়েছে। এদিন সকালে ভারতীয় বায়ুসেনার পক্ষ থেকে টুইট করে জানানো হয়েছে বিষয়টি।

এইচ-৬৪ই (১) এই মডেলের অ্যাপাচি হেলিকপ্টারটির গুণ তাক লাগানো। এটি যে কোনও আবহাওয়ায় স্থলে এবং আকাশে শত্রুকে নিশানা করায় সহায় হতে পারে। এমনকী  অনেক নীচু থেকেও গাছপালা ও অন্যান্য বাধা এড়িয়ে আক্রমণ করতে এই হেলিকপ্টার সক্ষম।

বায়ুসেনার তরফে এয়ার মার্শাল এ এস বুটোলা উপস্থিত থেকে বোয়িং প্রোডাকশান ফেসিলিটি থেকে এই হেলিকপ্টারটি গ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন সরকারের প্রতিনিধিও।

প্রসঙ্গত মার্কিন সরকারের সঙ্গে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসেই ২২ টি অ্যাপাচি হেলিকপ্টারের বিষয়ে চুক্তি হয়েছিল। আগামী জুলাই মাসের মধ্যেই চুক্তি মোতাবেক বেশ কিছু পাওয়া হেলিকপ্টার যাবে।  ইতিমধ্যেই অ্যালাবামায় এই হেলিকপ্টার চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার বেশ কয়েকজন বিমানচালক ও গ্রাউন্ড ক্রিউকে। তাঁরাই দেশে এই অ্যাপাচি বাহিনীকে নেতৃত্ব দেবেন। 

আইএফএ সূত্রে খবর এইচ-৬৪ই (১) মডেলের অ্যাপাচি হেলিকপ্টারটি পার্বত্য উপত্যাকায় ভারতীয় বায়ুসেনার যাবতীয় সুবিধে অসুবিধের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে। ভারতীয় বায়ুসেনার আধুনিকীকরণে এই বিমানের গুরুত্বকে স্বীকার করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই হেলিকপ্টারটির সবচেয়ে বড় দক্ষতাই হল প্রতিকূল পরিবেশে হেলিকপ্টারটি কাজ করতে পারে। যুদ্ধক্ষেত্রের ছবি তুলতেও সক্ষম এই হেলিকপ্টারটি। ভবিষ্যতে ভারতীয় স্থলসেনার সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করবে এই হেলিকপ্টার বাহিনী। 

ভারত ইতিমধ্যেই চিনুক নামক হেলিকপ্টারটি কিনেছে বোয়িং থেকে। সেগুলি মূলত খাদ্য, অস্ত্র, জ্বালানি ইত্যাদি পরিবহণের কাজে ব্যবহৃত হয়।