গত সেপ্টেম্বর মাসে ফ্রান্স থেকে ভারতে এসেছিল রাফাল যুদ্ধবিমান। রাফালের অন্তর্ভুক্তিতে নতুন করে কার্যকর হয়েছিল বিমানবাহিনীর গোল্ডেন অ্যারোস স্কোয়াড্রন। এবার সেই স্কোয়াড্রনই এক যৌথ মহড়ায় অংশ নিতে চলেছে ফরাসী বিমানবাহিনী সঙ্গে। এর জন্য ফরাসীরাও নিয়ে আসছে আরও চারটি রাফাল যুদ্ধবিমান। রাজস্থানের মরুভূমির আকাশে ১৯ থেকে ২৫ জানুয়ারির মধ্যে চলবে এই যৌথ মহড়া।

এর জন্য চলতি মাসেই ভারতে আসছে ফরাসী বায়ুসেনার চারটি রাফাল যোদ্ধা বিমান। এর সঙ্গে আসছে ফরাসি বিমান বাহিনীর এয়ারবাস এ ৩৩০ মাল্টি-রোল ট্যাঙ্কার ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফ্ট (এমআরটিটি)। এটি রাফালগুলিকে জ্বালানি ভরার কাজ করবে। ভারতে আসার আগে এই চারটি ফরাসি রাফাল যোদ্ধা বিমান অস্ট্রেলিয় বিমানবাহিনীর সঙ্গেও এক যৌথ মহড়ায় অংশ নেবে বলে জানা গিয়েছে।

ভারতে যে বায়ুসেনার য়ৌথ মহড়াটি হবে তার নাম 'এক্সারসাইজ স্কাইরোস'। এই যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা চলবে রাজস্থানের পোখরানে। ২০১৯ সালে পোখরানের মরুবূমিতেই ভারতীয় বায়ুসেনার 'এক্সারসাইজ বায়ুশক্তি' হয়েছিল। সেই অনুশীলনে রাডার থেকে শত্রু কনভয়-সহ বিভিন্ন মাটিতে থাকা লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করার অনুশীলন করেছিল বায়ুসেনা। আসন্ন যৌথ অনুশীলনে মরুভূমির উপর কম উচ্চতায় ওড়া সহ বিভিন্ন সামরিক কলাকৌশলের অনুশীলন করা হবে। সেইসঙ্গে দুই দেশের বায়ুসেনার মধ্য়ে সমন্বয়ও বাড়বে।  

'এক্সারসাইজ স্কাইরোস'-এই ভারতীয় বায়ুসেনা প্রথমবার রাফাল যুদ্ধবিমানগুলি ব্যবহার করবে। প্রসঙ্গত, রাফাল-এর অন্তর্ভুক্তির পর পূর্ব লাদাখ বা ​​অন্য কোনও দ্বন্দ্বের ক্ষেত্রে এখন ফ্রান্স থেকে কেনা এই যুদ্ধবিমানগুলিই ভারতীয় বায়ুসেনার প্রধান অস্ত্র। কাজেই আসন্ন অনুশীলনে রাফালের কার্যকারিতার পরীক্ষাও হবে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, ভারতের পশ্চিম সীমান্তের কাছেই মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগেই চিন ও পাকিস্তানি বিমানবাহিনী যৌথ মহড়া করেছে। কাজেই ভারত-ফ্রান্স'এর রাফাল নিয়ে যৌথ অনুশীলন দুই প্রতিবেশি দেশকে একটা বিবৃতিও বটে।