বিতর্কিত প্রাকৃতিক নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় সেনা সরানোর কাজ প্রায় শেষের দিকে। প্যাংগং তসোর উত্তর ও দক্ষিণ তীর ফাঁকা হল প্রায় ১০ মাস পর। পূর্ব লাদাখ সেক্টরের অত্যমত ফ্ল্যাস পয়েন্ট ছিল এটি। প্যাংগং লেকের দখল নিতে মরিয়া ছিল চিন।  কিন্তু দীর্ঘ কথা বার্তার পর ভারত ও চিন দুটি দেশই এই এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে। উপগ্রহ চিত্রেও দেখা গেছে এই প্যাংগং-এর দুই তীর থেকে সরানো হয়েছে সেনা ও সমরসজ্জা। 

সেনা সরানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে আগামিকাল অর্থাৎ শনিবার আরও একবার বৈঠকে বসছে ভারত ও চিন দুই দেশের সেনা কর্তারা। সূত্রের খবর কমান্ডার বৈঠকটি হতে পারে চিনের দিকে মোল্ডোতে। সকাল ১০টা থেকে বৈঠক শুরু হওয়ার কথা। সূত্রের খবর চুক্তি অনুযায়ী সেনা সরানোর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই বৈঠকে বসার কথা রয়েছে দুই দেশের সেনা বাহিনীর কর্তাদের মধ্যে। দুই দেশের মধ্যে শেষ কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠক হয়েছিল গত ২৪ জানুয়ারি মোল্ডোর এপ্রান্তে চুসুলে। 

তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদের সম্পত্তির পরিমাণ কত, রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে শিরোনামে দীনেশ ত্...

ভূস্বর্গে আবার জঙ্গি হামলা, দেখুন সন্ত্রাসবাদী হামলার হাড়হিম করা ভিডিও ...

আসন্ন বৈঠকে ভারতীয় দলের নেতৃত্ব লেফটেন্যান্ট জেনারেল পিজি কে মেনন। তাঁর সঙ্গে থাকবেন ১৪ জনের কোর কমান্ডার। অন্যদিকে চিনা দলের নেতৃত্ব দেবেন দক্ষিণ জিনজিয়ান সামরিক  বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল নিল লিউ। সেনা সরানোর পর যে বৈঠক হবে সেকথা আগেই ঘোষণা করেছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তিনি আরও জানিয়েছিলেন চুক্তি অনুযায়ী চিনা সেনা প্যাংগং-এর আট নম্বর আঙুলের ওপ্রান্তে থাকবে। আর ভারত থাকবে ৪ নম্বর আঙুলের কাছে ধনসিং থাপা পোস্টে। ভারতীয় সেনা বাহিনী নিশ্চিত করেছে উভয় দেশই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে। আগে বেশ কয়েকটি এলাকায় দুই দেশেকর সেনা বাহিনী একে অপরের থেকে মাত্র ৫০ মিটার দূরে অবস্থান করছিল। কিন্তু এখনও বেশ কয়েক জায়গায় অস্থিরতা রয়েছে। সেগুলি নিয়ে আগামী বৈঠকে আলোচনা হতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে।