দ্বিতীয় দফার বৈঠকের পরই পিছু হাঁটল চিন। সূত্রের খবর পূর্ব লাদাখ সীমান্তের বেশ কিছু উত্তপ্ত এলাকা থেকে সরিয়ে নিয় সেনা। চিনের এই পদক্ষেপের পর সদর্থক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ভারত। সেই সব এলাকা থেকে ভারতও সেনা সরিয়ে নিয়েছে বলে সূত্রের খবর। ভারত চিন সীমান্তের উত্তেজনা কমাতে গত সপ্তাহেই দুই দেশের সামরিক পর্যায়ের বৈঠক হয়েছিল। চলতি সপ্তাহে শুরু হবে দ্বিতীয় দফার বৈঠক।

দ্বিতীয় দফার বৈঠক শুরুর আগেই চিনের এই পদক্ষেপ ইতিবাচক বলেই জানিয়েছেন ভারত। সূত্রের খবর পূর্ব লাদাখ সীমান্তের বেশ কয়েকটি এলাকা থেকে সরানো হয়েছে সেনা। 

সেই এলাকা গুলি হল 
গ্যালওয়ান এলাকায় পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৪
পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৫
উষ্ণ প্রস্রবন এলাকা

সীমান্ত উত্তাপ কমাতে বেশ কয়েক দিন ধরেই ল্যাফটানেন্ট পর্যায়ে কথাবার্তা চলছিল। সূত্রের খবর তারই ফলস্রূতি হিসেবে গ্যালওয়ান উপত্যকা ও পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৫ আর উষ্ণ প্রস্রবণ এলাকায় দুই থেকে আড়াই কিলোমিটার পিছু হেঁটেছে চিনের পিপিলং লিবারেশন আর্মির সদস্যরা। চিন এই পদক্ষেপ গ্রহণ করায় ভারতও ওই সমস্ত এলাকা থেকে সৈন্য সরিয়ে ফেলেছে বলে জানিয়েছে সূত্র। সমর যানও ভারত সরিয়ে নিয়েছে বলে জানা গেছে। 

মে মাসের প্রথম থেকে পূর্ব লাদাখের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ভারত চিন সীমান্তে উত্তাপ বাড়ছিল। বেশ কয়েক প্যানগং লেক, গ্যালওয়ান উপত্যাকাসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় চিনা সেনা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছিল বলেও অভিযোগ। ভারতীয় সেনাদের পেট্রোলিং-এও বাধা দেওয়া হয়েছিল। লাদাখ সীমান্ত দুই দেশেরই সেনা একাধিকবার সংঘর্ষে জড়িয়েছিল বলে অভিযোগ। এই পরিস্থিতিতে আলোচনার মাধ্যমেই সীমান্ত সমস্যা মাটাতে উদ্যোগ নেয় দুই দেশ। সামরিক বৈঠকের পাশাপাশি কূটনৈতিক স্তরেও কথাবর্তা চলছে বলে সূত্রের খবর। রবিবারই বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানান হয়েছে শান্তি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সীমান্ত সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী দুই দেশ। তারপরই সীমান্ত থেকে চিন আর ভারতীয় সেনা সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই উপযোগী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।