অবস্থার কোনও পরিবর্তন নেই। গত কয়েকদিন হল দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৭০ হাজারের কাছাকাছি থাকছে। সেই ছক বদলালো না শনিবারও। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা দাঁড়াল ৬৯ হাজার ৮৭৮। ফলে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ২৯ লক্ষ ৭৫ হাজার ৭০২। এদিনও আমেরিকা ও ব্রাজিলের থেকে দৈনিক সংক্রমণে অনেকটাই এগিয়ে থাকল ভারত।

 

 

এদিকে দেশে মৃতের সংখ্যা ৫৫ হাজার ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে প্রাণ হারিয়েছেন ৯৪৫ জন। ফলে কোভিড ১৯ রোগে দেশে মৃতের সংখ্যা এখন দাঁড়িয়েছে ৫৫ হাজার ৭৯৪। 

আরও পড়ুন: বিশ্ব থেকে কবে উধাও হবে করোনার প্রকোপ, এবার সময় জানিয়ে দিল 'হু'

এসবের মধ্যে একটাই আশার খবর সুস্থতার হার। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২২ লক্ষ ২২ হাজার ৫৭৮ জন। ফলে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা এখন দেশে দাঁড়িয়েছে ৬ লক্ষ ৯৭ হাজার ৩৩০। দেশে সুস্থতার হার বেড়ে হয়েছে ৭৪.২৮ শতাংশ। মৃত্যুহার কমে দাঁড়িয়েছে ১.৮৯ শতাংশ। দেশে একদিনে সুস্থ হয়েছে ৫৪ হাজার ৮৪৯ জন। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানাচ্ছে চলতি আগস্টে যেমন দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে তেমনি সুস্থতার হারও নজর কেড়েছে। গত ১ আগস্ট পর্যন্ত দেশে সুস্থ হয়েছিলেন ১০ লক্ষ ৯৪ হাজার ৩৭৪ জন করোনা রোগী। ২১ আগস্টে সেই সংখ্যাটা পৌঁছে গিয়েছে ২১ লক্ষের উপরে। 

আরও পড়ুন: ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়েও চিনের প্রভাব খাটানোর চক্রান্ত ফাঁস, বেজিংকে আটকাতে কড়াকড়ি ভিসা নীতিতে

এদিকে করোনার দৈনিক নমুনা পরীক্ষায় ফের নতুন মাইলস্টোন ছুঁল ভাত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী,শুক্রবার গোটা দেশে ১০ লক্ষ ২৩ হাজার ৮৩৬  কোভিড টেস্ট হয়েছে। যা একদিনে এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। সব মিলিয়ে ভারতে এ পর্যন্ত ৩ কোটি ৪৪  লক্ষ ৯১  হাজার ৭৩ টি নমুনার কোভিড পরীক্ষা হয়েছে।  প্রতি দিন যে সংখ্যক মানুষের পরীক্ষা হচ্ছে, তার মধ্যে যত শতাংশের কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসছে, সেটাকেই বলা হচ্ছে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার। গত এক সপ্তাহ ধরে এই হার রয়েছে নয় শতাংশের কম। যা বেশ স্বস্তিদায়ক।