সোমবার ভারত জানিয়ে দিল, এই বছর মালাবার নৌমহড়ায় যোগ দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া-ও। অন্যান্য বছর ভারতের সঙ্গে এই নৌমহড়ায় যোগ দিতে দেখা যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ইন্দোনেশিয়ার মতো দেশ। অর্থাৎ, আসন্ন মালাবার মহড়ায় 'কোয়াড' বা ভারত-আমেরিকা-জাপান-অস্ট্রেলিয়ার জোটের চার সদস্যই এই বছর এই মহড়ায় অংশ নিতে চলেছে। সম্ভবত পরবর্তী মাসেই বঙ্গোপসাগর এবং আরব সাগরে এই মহড়া অনুষ্ঠিত হবে।

গত কয়েক বছর ধরেই, অস্ট্রেলিয়া এই সামরিক অনুশীলনে যোগ দিতে গভীর আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এতদিন তাতে সম্মতি না দিলেও পূর্ব লাদাখে সীমান্ত নিয়ে চিনের সঙ্গে সম্পর্কের ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে এই মেগা নাভাল ড্রিল-এর অংশীদার হওয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়াকে মনোনীত করল ভারত।

এক বিবৃতিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সমুদ্র সুরক্ষার বিষয়ে ভারত অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে সহযোগিতা ও সমন্বয় বাড়াতে আগ্রহী। অস্ট্রেলিয়ার সাথে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বৃদ্ধিও ভারতের অন্যতম লক্ষ্য। তাই ২০২০ সালে মালাবার নৌমহড়ায় অস্ট্রেলিয়ান নৌবাহিনীকেও অংশ নিতে দেখা যাবে। সমুদ্রে নন কনট্যাক্ট মহড়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই মহড়া অংশগ্রহণকারী দেশগুলির নৌবাহিনীর মধ্যে সমন্বয় জোরদার করবে বলে আশা প্রকাশ করেছে মন্ত্রক।

১৯৯২ সালে ভারত মহাসাগরে ভারতীয় নৌবাহিনী এবং মার্কিন নৌবাহিনীর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক অনুশীলন হিসাবে মালাবার নৌমহড়া শুরু হয়েছিল। ২০১৫ সালে এই সামরিক অনুশীলনের স্থায়ী অংশগ্রহণকারী হয়ে ওঠে জাপান। তবে প্রথম থেকেই মালাবার নৌমহড়ার প্রকৃত উদ্দেশ্য নিয়ে সন্দিহান চিন। বেজিং মনে করে, এই বার্ষিক নৌমহড়া ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চিনের প্রভাব হ্রাস করার প্রচেষ্টা।