ভারত সরকার আগেই জানিয়েছে দেশের সবাইকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হবে। জাইডাস ক্যাডিলাক এবং ভারত বায়োটেকের সঙ্গেও চুক্তি করলেও, এর জন্য সরকার অনেকটাই ভরসা করছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থা সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার উপর। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনা টিকা কোভিশিল্ড উৎপাদনের জমন্য চুক্তি করেছে তারা। এই টিকার ঠিক কত কোটি ডোজ ভারত সরকার সংগ্রহ করবে, এতদিন তা অজানাই ছিল। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের পরই তা ফাঁস করলেন সিরাম-এর সিইও আদর পুনাওয়ালা।

শনিবার প্রধানমন্ত্রী তাদের ভ্যাকসিন উৎপাদন কেন্দ্র ঘুরে যাওয়ার পর পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত ভারত সরকার কতগুলি ডোজ কিনবে সেই সম্পর্কে সিরাম-এর সঙ্গে লিখিত কোনও চুক্তি করেনি। তবে প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্যদের সঙ্গে আলোচনায় ইঙ্গিত মিলেছে, ২০২১ সালের জুলাই মাসের মধ্যেই ভারত ৩০০ থেকে ৪০০ মিলিয়ন অর্থাৎ ৩০ থেকে ৪০ কোটি ডোজ সংগ্রহ করতে চলেছে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি আরও জানিয়ছেন, তাঁর সংস্থা আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যেই জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য কোভিশিল্ডের অনুমোদনের জন্য আবেদন করবে।

 

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন বিতরণের বিষয়ে পুনাওয়ালা সাফ জানিয়েছেন, ভারত এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভাক্স প্রোগ্রামের আওতায় চুক্তিবদ্ধ দেশগুলিকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে ভ্যাকসিন বিতরণ করা হবে ভারতে। তারপর আফ্রিকায়। আর ব্রিটেন এবং ইউরোপের অন্যান্য দেশে কোভিশিল্ড বিতরণের দায়িত্ব নেবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং অক্সফোর্ড।

এই সাক্ষাত্কারকালে পুনাওয়ালা আরও জানিয়েছেন ভ্যাকসিন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পড়াশোনা তাঁকে মুগ্ধ করেছে। ভ্যাকসিন উত্পাদন বিষয়ে তিনি এতটাই জেনে এসেছিলেন, যে তাঁকে খুব বেশি বিষয় ব্যাখ্যা করতে হয়নি সিরাম ইনস্টিটিউটের গবেষকদের।