পরমাণু আঘাত হানতে সক্ষম ছ'টি সাবমেরিন তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারত। নৌবাহিনীকে আরও শক্তিশালী করে তুলতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, প্রতিরক্ষা বিষয়ক সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্টেই এই তথ্য জানানো হয়েছে। 

এই মুহূর্তে ভারতের হাতে পনেরোটি প্রথাগত সাবমেরিন রয়েছে। এছাড়াও রাশিয়ার কাছ থেকে একটি পরমাণু আঘাত হানতে সক্ষম সাবমেরিন লিজে নিয়েছে ভারত। এর সঙ্গে আরও আঠারোটি প্রথাগত এবং ছ'টি পরমাণু আঘাত হানতে সক্ষম সাবমেরিন যুক্ত করতে চায় নৌবাহিনী। সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে নিজেদের পেশ করা রিপোর্টে এমনই তথ্য জানিয়েছে প্রতিরক্ষা বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি। 

বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে দেশেই এই সাবমেরিনগুলি তৈরি করা হবে বলে জানা গিয়েছে। নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত পনেরো বছরে মাত্র দু'টি প্রথাগত সাবমেরিনকে নৌবাহিনীর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই মুহূর্তে নৌবাহিনীর হাতে যে সাবমেরিনগুলি রয়েছে, সেগুলির অধিকাংশই যে বেশ যথেষ্ট পুরনো তাও একটি তথ্যে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। বর্তমানে নৌবাহিনীর হাতে থাকা সাবমেরিনগুলির মধ্যে তেরোটির বয়স সতেরো থেকে একত্রিশ বছরের মধ্যে। 

বর্তমানে ভারতের হাতে যে প্রথাগত সাবমেরিনগুলি রয়েছে, সেগুলির মধ্যে রাশিয়ান এবং জার্মান প্রযুক্তিতে তৈরি ডুবোজাহাজের পাশাপাশি অত্যাধুনিক ফঁরাসি প্রযুক্তিতে তৈরি স্করপিন ক্লাস সাবমেরিনও রয়েছে।