ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং চিনা সেনার মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই সোমবার কেন্দ্রীয় সরকার চিন-ভারত সীমান্তে চলমান সবকটি সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের পর্যালোচনা করল। চিনা হুমকির পরোয়া না করেই এর মধ্যে ৩২টি প্রকল্পের কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে এই পর্যালোচনা সভা ডাকা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় পূর্ত বিভাগ (সিপিডব্লুডি), সীমান্ত সড়ক সংস্থা (বিআরও) এবং ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (আইটিবিপি)-এর কর্মকর্তারাও এই বৈঠকে ছিলেন। এই সড়ক নির্মাণ প্রকল্পগুলির কাজে দ্রুততা আনতে সংশ্লিষ্ট সকল সংস্থা পারস্পরিক সহযোগিতায় কাজ করবে।

চিন-ভারত সীমান্তে বর্তমানে মোট ৭৩টি রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছে। এর মধ্যে এমএইচএর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে সিপিডব্লিউডি-র হাতে রয়েছে ১২টি প্রকল্প এবং বিআরও-র হাতে রয়েছে ৬১টি প্রকল্প। যে লাদাখ সেক্টরে ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং চিনা সেনার মধ্যে বর্তমানে বিবাদ চলছে, সেই লাদাখেই বিআরও কমপক্ষে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা তৈরি করছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সাম্প্রতিক কয়েক বছরে চিন-ভারত  সীমান্ত এলাকায় রাস্তা নির্মাণের কাজে জোর দেওয়া হয়েছে। তবে শুধু সড়ক নির্মাণই নয়, এছাড়াও সীমান্তবর্তী এলাকায় বিদ্যুৎ, স্বাস্থ্য, টেলি যোগাযোগ ও শিক্ষা ব্যবস্থার মতো অন্যান্য পরিকাঠামোগত উন্নয়নের প্রকল্পগুলিকেও এই সময় অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলেই জানায়েছে মন্ত্রকের এক সূত্র।