গত কয়েকদন হল দেশের করোনা সংক্রমণ যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ক্রমেই কপালে চিন্তার ভাজ পরছে বিশেষজ্ঞদের। গত ৩ দিন ধরে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যআ ৮ হাজার ছাড়িয়েছিল। এবার তা ৯ হাজার ছুঁয়ে ফেলতে চলল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৮,৯০৯ জন। ফলে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এবার ২ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যা অনুযায়ী বুধবার সকাল পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৭ হাজার ৬১৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ২১৭ জনের। ফলে বর্তমানে ভারতে কোভিড ১৯ রোগে  মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫,৮১৫। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানাচ্ছে এখনও পর্যন্ত করোনা মুক্ত হয়েছে ১ লক্ষ ৩০৩ জন। ফলে বর্তমানে দেশে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ১ হাজার ৪৯৭ জন। স্বাস্থ্য মন্ত্রক দাবি করেছে, দেশে সুস্থতার হার ৪৮,১৯ শতাংশ। 

আরও পড়ুন: আরব সাগরে ৬ ফুট লম্বা ঢেউ ওঠার আশঙ্কা, ১৩৮ বছর পর ঘূর্ণিঝড় দেখছে মুম্বইবাসী

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত দেশের তালিকায় সপ্তম স্থানে রয়েছে ভারত। ইন্ডিয়ান কাউন্টিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ জানিয়েছে দেশে এখনও পর্যন্ত ৪১ লক্ষ ৩ হাজার ২৩৩ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার ১৫৮। 

সরকারি পরিসংখ্যান বলছে, দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃতদের ৫০ শতাংশ ষাটোর্দ্ধ ব্যক্তি, যারা মোট জনসংখ্যার মাত্র ১০ শতাংশ। পরিসংখ্যান আরও বলছে, মৃতদের ৭৩ শতাংশেরই করোনা ছাড়া আনুষাঙ্গিক সমস্যা থাকছে। 

মঙ্গলবার প্রকাশ করা পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, করোনায় মোট মৃতের ৩৮ শতাংশ ৬০ থেকে ৭৪ বছর বয়স্ক। যারা দেশের মোট জনসংখ্যার ৮ শতাংশ। ১২ শতাংশ মৃতের বয়স ৭৪ বছরের উপরে। যারা দেশের মোট জনসংখ্যার ২ শতাংশ।

আরও পড়ুন: মুম্বইয়ের আরও কাছে নিসর্গ, শুরু হয়ে গিয়েছে ঝড়-বৃষ্টি, কিছুক্ষণের মধ্যেই আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড়টি

গোটা বিশ্বে করোনা সংক্রমণে মৃতের হাক ৬.১৩ শতাংশ, সেই তুলনায় ভারতের অবস্থা অনেকটাই ভাল বলে দাবি করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। দেশে বর্তমানে মৃত্যু হার ২.৮২ শতাংশ। যেখানে প্রতি লাখ জনসংখ্যায় বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ০.৪১ শতাংশ সেখানে ভারকে প্রতি লক্ষে করোনা আক্রান্ত ০.৪১ শতাংশ বলে দাবি করা হচ্ছে। 

এদিকে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখনও এক নম্বরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। রাজ্য টিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ হাজার ছাড়িয়েছে। তারমধ্যে কেবল মুম্বইতেই আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ হাজারের বেশি। এর পরেই দেশে দ্বিতীয় করোনা আক্রান্ত রাজ্য তামিলনাড়ু, এখানে আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ২৪ হাজার ছাড়িয়েছে। তৃতীয় স্থআনে রয়েছে দেশের রাজধানী, দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২২ হাজারের বেশি।

মৃতের সংখ্যাতেও দেশের মধ্যে এক নম্বরে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এই রাজ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২,৪৬৫ জনের। এরপরে রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর রাজ্য গুজরাত। এখানে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১,০৯২ জনে। দিল্লিতে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৫৫৬ জন।