বুধবার রাজস্থানের জরপুরে ২১ জন পাকিস্তান থেকে আগত হিন্দু শরনার্থীকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হল। জয়পুরের ডিস্ট্রিক্ট কালেক্টর এদিন ওই পাক শরমার্থীদের হাতে ভারতীয় নাগরিকত্বের সংশাপত্র তুলে দেন। এঁরা দীর্ঘদিন ধরে রাজস্থানে বাস করলেও সম্প্রতি এই ২১ জনের অন্তত ৬ জনকে রাজ্যপুলিশের গোয়েন্দাবিভাগ সন্দেহজনক আচরণের জন্য পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেওয়ার নোটিশ দিয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। সেই সুপারিশের উপর স্থগিতাদেশ জারি করেছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

অভিয়োগ, একই পরিবারের এই ২১ জন সদস্য ২০১৩ সালে ধর্মীয় নিপীড়নের হাত থেকে বাঁচতে ভারতের রাজস্থানের যোধপুর জেলায় আশ্রয় নেন। ভারতে থাকাকালীন তারা নিয়মমতো ভিসার মেয়াদ বাড়িয়েছেন। কিন্তু সম্প্রতি পরিবারের ছয় সদস্য নাচনা এলাকায় বিদেশিদের জন্য নিষিদ্ধ এক এলাকায় ঢুকে পড়েন। এরপরই তাঁদের অবিলম্বে পাকিস্তানে ফেরত যাওয়ার নোটিশ পাঠিয়েছিল রাজস্থান পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।   

এরপরই ওই পরিবার, পুলিশ প্রশাসন ও  কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত-এর কাছে তাঁদের রাজস্থানে থাকার অনুমতি চেয়ে আবেদন করে। তারা দাবি করে, জীবিকার সন্ধানেই ভুল করে সংরক্ষিত এলাকায় চলে গিয়েছিল তারা। পুরুষ সদস্যদের পাকিস্তনে ফিরিয়ে দেওয়া হলে মহিলারা আত্মঘাতি হবেন বলেও হুমকি দেন।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে ওই ছয়জনকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তারপরই তাদের সকলকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ফলে ওই ২১ পাকিস্তানি হিন্দু শরনার্থীদের ভারতে থাকতে আর বাধা রইল না। অথচ অসমে দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে বসবাসকারীরাও এক লহমায় 'বিদেশি' হয়েছেন এনআরসি- দৌলতে।