উদ্বেগের পরিস্থিতি যেন কিছুতেই বদলাচ্ছে না। বুধবার দেশে করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ৯০ হাজারের কোঠায় ছিল। কিন্তু ২৪ ঘণ্টা যেতে না যাতেই ফের করোনা গ্রাফের বৃদ্ধি চিন্তায় ফেলল দেশবাসীকে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭ লক্ষ ৮৯৪ জন। তার ফলে দেশে বর্তমানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ৫১ লক্ষ ১৮ হাজার ২৫৪ তে। এই নিয়ে টানা ৪২ দিন ভারত দৈনিক সংক্রমিতের সংখ্যায় বিশ্বে সবার আগে।  গত ২৪ ঘণ্টায়  মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যাতেও ভারত বিশ্বে এক নম্বরে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ভারতে মৃত্যু হয়েছে ১,১৩২ জনের। ফলে দেশে কোভিড ১৯ রোগে মৃতের সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ৮৩ হাজার ১৯৮ তে।

 

 

তবে এসবের মধ্যে অবশ্য আশার আলো দেখাচ্ছে সুস্থতার হার। ইতিমধ্যে ভারতে করোনাজয়ীর সংখ্যা ৪০ লক্ষ ছাড়িয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রীকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী সংখ্যাটা ৪০ লক্ষ ২৫ হাজার ৮০। ফলে দেশে এখন সক্রিয় রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লক্ষ ৯ হাজার ৯৭৬। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৮২, ৭১৯ জন। সারা দেশে সুস্থতার হার ৭৮.৬৪  শতাংশ। দেশে মৃত্যুর হার ১.৬৩ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা টেস্ট হয়েছে ১১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৬১৩ টি।  সেইসঙ্গে এদেশে ৬কোটি পেরিয়ে গেল মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা। ভারতে এখনও পর্যন্ত মোট ৬কোটি ৫ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭২৮ টি নমুনার করোনা পরীক্ষা হয়েছে। এই মুহূর্তে জাতীয় স্তরে পজিটিভিটি রেট ৮.৪ শতাংশ। কিন্তু মহারাষ্ট্র,অন্ধ্র, কর্নাটক ও আরো কিছু রাজ্য চিন্তা বাড়াচ্ছে। এই সব রাজ্যে টেস্টিং আরো বাড়াতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

 

দেশে এখনও দৈনিক আক্রান্ত ও মৃত্যুর নিরিখে সবার আগে রয়েছে মহারাষ্ট্র। এখনও পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ১১,২১,২২১ জন। ২৪ ঘন্টায় সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন  ২৩ হাজারের বেশি। আক্রান্তের নিরিখে দেশে প্রথম ৫ রাজ্য হল মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্নাটক, উত্তরপ্রদেশ। ষষ্ঠস্থানে রয়েছে দিল্লি। আর সপ্তমস্থানে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। অন্যদিকে সক্রিয় আক্রান্তের নিরিখে প্রথম কয়েকটি রাজ্য হল মহারাষ্ট্র, কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, ওড়িশা, তেলেঙ্গানা, অসম, পশ্চিমবঙ্গ ।