গত জুনেই রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়েছে ভারত। তার পর শুক্রবার প্রথম সেখানে ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  রাষ্ট্রসংঘের  ৭৫তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই ভাষণ মোদী বলেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে অধিক সুস্থতার হার ভারতেরই।

আরও পড়ুন: রাজস্থানে এবার প্রকাশ্যে বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বও, গেহলট-বসুন্ধরা আঁতাত নিয়ে আক্রমণাত্মক পাইলট

মোদী এদিন বার্তা দেন, মহামারী মোকাবিলায়  শুধু দেশে নয়, বিশ্বেও সাফল্য পেয়েছে ভারত। স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর উন্নতি করে একদিকে যেমন,দেশে মৃত্যু হার অনেকটা কমানো গিয়েছে। তেমনই শতাধিক দেশে ওষুধ পৌঁছে করোনার মোকাবিলা করতে সাহায্য করেছে ভারত। 

 

তাঁর কথায়, "করোনা মোকবিলায় একসঙ্গে লড়াই চলছে। ১৫০টি দেশকে সাহায্য করেছে ভারত। সবকা সাথ, সবকা বিকাশই আমাদের লক্ষ্য। গরিবদের জন্য রয়েছে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প। উন্নয়নশীল দেশকেও সাহায্য করে চলেছে ভারত।" মোদী বলেন, করোনায় ভারতে মৃত্যু হার সবচেয়ে কম। সুস্থতার হার সবচেয়ে বেশি। করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে ভারত বিশ্বকে পথ দেখাচ্ছে। আত্মনির্ভর ভারত বিশ্বকে লড়াইয়ের নতুন মন্ত্র শেখাচ্ছে।

আরও পড়ুন: 'আলোচনায় কতদূর সমাধান বেরোবে কোনও গ্যারান্টি নেই', লাদাখ থেকে এবার সোজাসুজি রণহুঙ্কার রাজনাথের

গত ছয় বছরে সরকারি প্রকল্পের সাফল্যের খতিয়ানও এদিন বিশ্বমঞ্চে  তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বিশ্ববাসীকে জানালেন, এই মহামারী পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে কীভাবে আত্মনির্ভর হয়ে উঠছে ভারত।  সবমিলিয়ে রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চ থেকে প্রধানমন্ত্রী এদিন দেশের জয়গান গাইলেন।