এ ঘটনা প্রথমবার নয়। এর আগেও তাজমহলের গায়ে সবুজ ও কালো ছোপ দেখা গিয়েছিল। আবারও একইভাবে তাজমহলের পাথরের ওপর দেখা গেল সবুজ ও কালো রঙের ছোপ। বিশেষজ্ঞদের মতে, এক প্রকার পতঙ্গের কারণেই তাজমহলের গায়ে এইরকম ছোপ দেখা দিচ্ছে। 

আর্কিওলজিকাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার তরফে জানানো হয়েছে, দিনে দিনে এটি যেন একটি স্থায়ী সমস্যায় পরিণত হয়েছে। আর এই বিশেষ পতঙ্গের বংশ বিস্তারে অন্যতম ভুমিকা পালন করছে যমুনা নদী।  আর্কিওলজিকাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন,  যমুনা নদীতে বাড়তে থাকা দূষণের কারণে বিশেষ এই পোকা আরও বেশি করে বাসা বাধছে। আর এর ফলেই প্রাচীন এই সৌধের শ্বেত পাথরের গায়ে সৃষ্টি হচ্ছে ছোপের। 

বিশেষজ্ঞরা আরও জানিয়েছেন, এই সমস্যা আগেও ছিল, তবে আগে এপ্রিল এবং অক্টোবর মাসে এই পোকার উপদ্রবে তাজমহলের দেওয়াল ক্ষতিগ্রস্ত হত, কিন্তু এখন এটি যেন নিত্য সমস্যায় পরিণত হয়েছে। প্রসঙ্গত, শুক্রবার করে পর্যটকদের জন্য বন্ধ রাখা হয় তাজমহল। আর সেই দিন করেই তাজমহলের দেওয়ালের ওপর পড়া ছোপ ঘষে তোলার কাজ চলছে বলে জানিয়েছে আর্কিওলজিকাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া। 

তাজমহলের এই দেওয়ালের ছোপ পরিষ্কার করতে  এখন ভরসা কেবল পরিশ্রুত জল। যদিও আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে যে, শতাব্দী প্রাচীন এই স্মৃতি শৌধের ওপর বারংবার ঘষা-মাজা করলে শ্বেত পাথরের ক্ষতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের আরও দাবি, কেবলমাত্র যমুনা নদীর জল যদি দূষণ মুক্ত করা যায়, তাহলেই একমাত্র এই সমস্যার একটি স্থায়ী সমাধান করা সম্ভব।