চন্দ্রযান - ২ অভিযানের পর ফের একবার ইতিহাস গড়তে চলেছে জাতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। এবার লক্ষ্য় সূর্য। সবকিছু ঠিক থাকলে, চলতি বছরের শেষ দিকেই আদিত্য এল - ১ অভিযানে যাবে ইসরো। বস্তুত, এই অভিযানটি ২০২০ সালের প্রথমার্ধেই হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, কোভিড -১৯ মহামারির আগমনে ইসরোর পরিকল্পনা ধাক্কা খেয়েছিল।

এই অভিযানে পৃথিবী থেকে প্রায় ১৫ লক্ষ কিলোমিটার দূরে পাঠানো হবে একটি কৃত্রিম উপগ্রহ বা স্যাটেলাইট। ছয়টি বৈজ্ঞানিক পেলোড-এর সহায়তায় সেখান থেকে উপগ্রহটি সূর্যের বায়ুমণ্ডল অধ্যয়ন করবে। স্যাটেলাইটটি পৃথিবী ও সূর্যের মধ্যবর্তী এল ১ বা ল্যাঙ্গারিয়ান পয়েন্টে পাঠানো হবে। এই এলাকায় সূর্য ও পৃথিবীর মহাকর্ষীয় বল এমন, যে কৃত্রিম উপগ্রহটি সবচেয়ে কম জ্বালানী খরচ করে একটি নির্দিষ্ট  কক্ষপথে থাকতে পারে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই পয়েন্টগুলি বলা যেতে পারে মহাকাশের পার্কিং স্পট। তাছাড়া এই পয়েন্ট থেকে সৌরপৃষ্ঠকে নিরবচ্ছিন্নভাবে অধ্যয়ন করা যায়।

এই অভিযানে সূর্যের দৃশ্যমান অংশ বা ফটোস্ফিয়ার, এর উপরের অনিয়মিত স্তর বা ক্রোমোস্ফিয়ার এবং করোনা নামক প্লাজমার স্তরটি অধ্যয়ন করা হবে। এই তিন স্তর কয়েক হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত এবং তাপমাত্রা প্রায় ৫৭২৬.৮৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বলে জানিয়েছে ইসরো। এই অভিযানের জন্য ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটির প্রস্তুতি প্রায় শেষ বলে জানা গিয়েছে ইসরো সূত্রে।

তবে এই বছরের শেষে শুধু সূর্যাভিযানই নয়, জাতীয় মহাকাশ সংস্থাটি আরও একটি বড় অভিযানের পরিকল্পনা করেছে। গগনাযান অভিযান-এর প্রথম মানববিহীন মহাকাশযান পাঠানো হবে মহাকাশে। ২০২১ সালের ডিসেম্বরেই এই অভিযান হওয়ার কথা। তবে, চাঁদে তৃতীয় অভিযানের জন্য এখনও দিন স্থির করতে পারেনি ইসরো।