গত রবিবার লোকসভায় জম্মু কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিল সংক্রান্ত বিল পাশ হয়েছে। তারপর থেকে চারদিন কেটে গিয়েছে। অশান্তি হতে পারে আশঙ্কায় এতদিন উপত্যকায় কার্ফু জারি করা হয়েছিল। অবশেষে পরিস্থিতি আগের থেকে অনেক শান্ত মনে করছে প্রতিরক্ষা দফতর। আর সেই কারণেই, জম্মু ও কাশ্মীরে শুক্রবার থেকে ফের স্কুল কলেজ খুলতে চলেছে। সেইসঙ্গে সরকারি কর্মচারিদের কাজে ফেরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর সামনে কাশ্মীর উপত্যকা ও ইন্দো-পাক নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে একটি রিপোর্ট পেশ করেছেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। সেই রিপোর্টে তিনি দাবি করেছেন উপত্যকার সার্বিক পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ আপাতত ভারতীয় সেনাবাহিনীর কব্জায়। তববে সেনা সদস্যরা পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রেখে চলেছেন এবং যে কোনও উদ্ভূত পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য তাঁরা তৈরি।

এরপরই জম্মু কাশ্মীর প্রশাসন জানায় সাম্বা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে শুক্রবার থেকে ফের চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ডিভিশন, জেলা স্তরের ও শ্রীনগর সচিবালয়ে কর্মরত সব সরকারি কর্মচারীদেরও শুক্রবার থেকেই কাজে যোগদানের নির্দেশ দিয়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্য সচিব। প্রশাসন আরও বলেছে স্বাভাবিক ও নিরাপদ কাজের পরিবেশ যাতে থাকে তার জন্য সবরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এর আগে কার্ফু চলাকালীনই, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালকে দেখা গিয়েছিল সোপিয়ানের রাস্তায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে আলাপচারিতা করতে। সেই সময় তিনিও জানিয়েছিলেন দ্রুতই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। এদিনের সরকারি নির্দেশে তারই আভাস মিলেছে।