সপ্তাহ পার না হতেই আবারও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘনের অভিযোগ। এবার উপত্যকার পুঞ্চে যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘন করে পাক সেনা। আর তাতেই প্রাণ গেল সেনা বাহিনীর এক জুনিয়ার কমিশনার অফিসারের। আহত অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি।  এদিন পাক সেনার ছোঁড়া গুলি আর বারুদে  গুরুতর জখন হয়েছেন পুঞ্চের এক স্থানীয় বাসিন্দা। 

বৃহস্পতিবার পুঞ্চ সেক্টর এলাকায় যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘন করে পাক সেনা। পাল্টা জবাব দেয় ভারতও। সেনা সূত্রে খবর পাকিস্তানের দিক থেকে প্রথম যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘন করে গুলি চালান হয়।  দিগবার টাউন সেক্টর থেকেই প্রথম গুলি ছোঁড়া হয় বলেও দাবি করা হয়েছে। পাকিস্তানের এই এলাকাটি ভারতের পুঞ্চ সেক্টরের ঠিক উল্টো দিকেই পড়ে। সেনা সূত্রে খবর প্রথম দিকে পাক সেনাকে প্রতিহত করতে ভারত পাল্টা জবাব দিলেও প্রথম দিকে হালকা অস্ত্রে তাক করে। কিন্তু প্রতিবেশী রাষ্ট্রটি সেসব তোয়াক্কা না করেই ভারতের দিকে ভারী অস্ত্র চালনা করতে শুরু করে। পাক সেনার মূল লক্ষ্যই ছিল ভারতের নাগরিকরা। তাতেই গুরুতর চোট পান মহম্মদ রসিদ। 

পুঞ্চ সেক্টরে দুই পক্ষের গোলাগুলি চলে দীর্ঘক্ষণ। ভারতও পাকিস্তানকে এদিন শক্তিশালী জবাব দেয়। শেষে বাধ্য হয়ে পিছু হাঁটে পাক বাহিনী। বন্ধ করে দেয় গুলি চালানো। তারপর হাত গুটিয়ে নেয় ভারত। তবে প্রায়ই পাকিস্তান সেনা যুদ্ধ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে সীমান্তে গুলি চালায় বলে অভিযোগ।