২০২১ সালে বছরে চারবার হবে JEE - Mains অর্থাৎ জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা। শুরু হবে ফেব্রুয়ারি থেকে। বৃহস্পতিবার, শিক্ষক, অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এক অনলাইন কথোপকথন চলাকালীন এই কথা ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক। সাধারণত, বছরে দু'বার করে নেওয়া হয় এই পরীক্ষা। চলতি বছরে কোভিড-১৯ মহামারিজনিত কারণে দু'বার পিছিয়েছিল JEE - Mains।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, ২০২১ সালে বছরে চারবার JEE - Mains পরীক্ষা নেওয়া হবে। প্রথমটি হবে ফেব্রুয়ারির শেষে। তারপরে মার্চ, এপ্রিল এবং মে মাসে ফের পরীক্ষা হবে। প্রত্যেকবার তিন থেকে চার দিন ধরে পরীক্ষা চলবে। রমেশ পোখরিয়াল আরও জানান, অন্যান্য পরীক্ষার সঙ্গে একই দিনে পড়ে যাওয়ায় বা কোভিড-১৯-এর জন্য কোনও পরিক্ষার্থী যাতে প্রাপ্য সুযোগ থেকে বঞ্চিত না হয় তা নিশ্চিত করতেই পরের বছর চারবার করে পরীক্ষার আয়োজন করা হবে।

তবে, ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা পরীক্ষা, JEE - Mains বা মেডিকেল প্রবেশিকা পরীক্ষা NEET, কোনওটিরই সিলেবাসে কোনও কাটছাঁট করা হবে না বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেছেন, জয়েন্ট এন্ট্রান্স-এর পাঠ্যসূচি গত বছরের মতোই থাকবে। তবে একটি প্রস্তাব বিবেচনা করছে সরকার। যে প্রস্তাবে বলা হয়েছে, পরিক্ষার্থীদের ৯০ টি প্রশ্নের (পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন এবং গণিত থেকে ৩০ টি করে প্রশ্ন) মধ্যে ৭৫টি প্রশ্ন (পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন এবং গণিত থেকে ৩০ টি করে প্রশ্ন) উত্তর দেওয়ার জন্য বেছে নিতে পারবে।

দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষার বিষয়ে অবশ্য এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। রমেশ পোখরিয়াল জানিয়েছেন, এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে এবং তাদের মতামতের ভিত্তিতে শিগগিরই কোও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে। করোনার দাপটে দেশের বহু জায়গাতেই স্কুলগুলি খুলেও আবার বন্ধ করে দিতে হয়েছে। পড়াশোনা যেটুকু হচ্ছে সবটাই সম্পূর্ণ অনলাইনে। এই বিষয়গুলির প্রেক্ষিতে ২০২১ সালের মে মাস পর্যন্ত সমস্ত বোর্ড পরীক্ষা স্থগিতের দাবি তুলেছেন শিক্ষক, পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের একাংশ।