লোকসভা ভোটের পর থেকে সময়টা ভালো যাচ্ছে না বিজেপির। বর্তমানে সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলন, জেএনইউ হামলার মতো একাধিক বিষয় নিয়ে বেশ বেকায়দায় রয়েছে গেরুয়া শিবির। তারমধ্যেই দলের কার্যনির্বাহী সভাপতি জে পি নাড্ডার হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের কমান্ড হস্তান্তর করার প্রস্তুতি চলছে। শোনা যাচ্ছে চলতি মাসের ১৯ বা ২০ তারিখ তাঁর হাতে ব্যাটন তুলে দেবেন বর্তমান সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

বিজেপির সর্বভারতীয় প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য অর্ধেক সংখ্যক রাজ্যের রাজ্যসভাপতিদের ভোট প্রয়োজন। সেই ভোটাভুটি প্রক্রিয়া ১৮ জানুয়ারির মধ্যেই শেষ করা হবে। আর তারপর আগামী তিন বছরের জন্য বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক দলের সভাপতি হবেন জেপি নাড্ডা। প্রথম মোদী সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আয়ুষ্মান ভারত, রেইনবো-র মতো প্রকল্প সফলভাবে কার্যকর করেছিলেন তিনি। তবে, মোদীর দ্বিতীয় মেয়াদে তাঁকে মন্ত্রিসভায় নেওয়া হয়নি। তাঁকে সংগঠনের হাল ধরার দায়িত্ব দেওয়ার জন্য তখন থেকেই তৈরি রাকা হয়েছিল।

সর্বভারতীয় সভাপতি হিসেবে অমিত শাহ-এর মেয়াদ শেষ হয়েছিল গত বছরের জানুয়ারিতেই। কিন্তু সামনে লোকসভা নির্বাচন থাকায় সেই সময় তাঁকে আরেক বছর কাজ চালিয়ে যেতে বলা হয়েছিল। দ্বিতীয় মোদী সরকারে অমিত শাহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সেই সময় জে পি নাড্ডাকে কার্যনির্বাহী সভাপতি করা হয়। এরপর, বিজেপি-র গঠনতন্ত্র মেনে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল, যা ১৮ জানুয়ারি শেষ হবে।