বিহারের নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়েছে কংগ্রেস। মহাজোটের দুর্বলতম দল হিসাবে প্রমাণিত হয়েছে তারা। শুধু তাই নয়, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশের মতো রাজ্য, যেখানে তাদের এখনও শক্তি রয়েছে, সেই রাজদ্যগুলিসহ দেসের বেশ কয়েকটি রাজ্যের উপনর্বাচনেও ভরাডুবি হয়েছে শতাব্দী প্রাচীন দলটির। এই অবস্থায় ফের একবার সরাসরি শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা কপিল সিবাল। প্রসঙ্গত, গত অগাস্ট মাসে দলের মধ্যে নির্বাচন চেয়ে যে ২৩ জন কংগ্রেস নেতা শীর্ষ নেতৃত্বকে চিঠি দিয়েছিলেন, তাঁদের অন্যতম হলেন সিবাল।

বেশ কয়েকটি স্তরে বেশ কিছু পদক্ষেপ

সোমবার, 'ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস' পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে কবিল সিবাল বলেছেন, যেসব রাজ্যে কংগ্রেস প্রধান বিকল্প ছিল, সেখানকার মানুষও আর কংগ্রেসকে ভোট দেননি। সুতরাং 'আত্মদর্শন'-এর সময় শেষ। কংগ্রেসের প্রত্যেক নেতা-কর্মীর বোঝা উচিত, দল ক্রমে শক্তি হারাচ্ছে। এই অবস্থায় দলকে পুনরুদ্ধার করতে গেলে বেশ কয়েকটি স্তরে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে বলে জানিয়েছেন এই দুঁদে নেতা।

কপিল সিবালের প্রেসক্রিপশন

কপিল সিবালের মতে প্রথমেই কংগ্রেস নেতৃত্বকে 'ভারতীয় রাজনীতির বাস্তবটা বোঝেন, এমন অভিজ্ঞ মনন ও হাতে কলমে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন মানুষদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। কথা বলতে হবে, কীভাবে সংবাদমাধ্যমের সামনে কথা বলতে হয় তা জানা মানুষদের সঙ্গে। কথা বলতে হবে কীভাবে মানুষকে নিজের কথা শোনানো যায়, তা জানেন এমন ব্যক্তিদের সঙ্গে। আর সেইসঙ্গে গড়তে হবে জোট। কিন্তু, অন্যান্য দল কংগ্রেসের কাছে জোট গড়ার প্রস্তাব নিয়ে আসবে, এই ভেবে বসে থাকলে চলবে না। কারণ কংগ্রেস এখন আর আগের মতো শক্তিশালী নেই। তাই, কংগ্রেসকেই যেতে হবে অন্যান্য দলের কাছে।

এখনও ভাবছেন 'অল ইজ ওয়েল'

এইসব কিছু তখনই হতে পারে, যখন কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব দলের অবক্ষয়টা মেনে নেবেন। কিন্তু, বিহার নির্বাচনের ফলাফলের পরও কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্বের সেই নিয়ে খুব একটা হেলদোল আছে বলে মনে করছেন না কপিল সিবাল। প্রবীন কংগ্রেসী নেতা জানিয়েছেন, শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁকে কিছু বলে না। তবে, শীর্ষ নেতৃত্বের আশপাশে থাকা নেতাদের কথা ভেসে আসে তাঁর কানে। কিন্তু, সেখান থেকেও বিহার ও উপনির্বাচনে কংগ্রেসের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স নিয়ে দলের কোনও বক্তব্য তাঁর কানে আসেনি। তাই, কপিল সিবালের ধারণা এখনও হয়তো নেতৃত্ব ভাবছে, 'অল ইজ ওয়েল' অর্থাৎ সবকিছু ঠিকঠাক রয়েছে।

কংগ্রেসই হোক বিকল্প

কপিল সিবাল-সহ দেশের ২৩ জন শীর্ষ স্থানীয় কংগ্রেসী নেতা গত অগাস্টে দলের মধ্যে বেশ কিছু পরিবর্তন চেয়ে শীর্ষ নেতৃত্বকে চিঠি দিয়েছিলেন। তাতে দলের মধ্যে কোন্দল লেগে গেলেও, ওই চিঠিতে সাক্ষর করা নেতাদের সমালোচনা করা ছাড়া কংগ্রেস কোনও পদক্ষেপই নেয়নি। এই অবস্থায় কপিল সিবাল জানিয়েছেন, তাঁর মত প্রকাশের কোনও জায়গাই নেই। সেই কারণেই এই কথাগুলি তিনি সংবাদমাধ্যমের সামনে বলতে বাধ্য হচ্ছেন বলে দাবি করেছেন সিবাল। তবে, তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, যে শক্তি এখন দেশের সব মূল্যবোধ নষ্ট করে দিচ্ছে, কংগ্রেসই তাদের বিকল্প হয়ে উঠবে।