দুমাস পার করে পর্যটকদের জন্য খুলল ভূস্বর্গের দরজা। গত ২ অক্টোবর অমরনাথ যাত্রা বাতিল করেছিল কেন্দ্র। পর্যটকদের রাজ্য ছাড়তে বলা হয়েছিল। আর গত ৫ অগস্ট সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ  বাতিল করে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়া হয়। আলাদা দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয় জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে। সেই সময় ভূস্বর্গ ভ্রমণে পর্যটকদের উপর নিষেধাজ্ঞা  জারি করা হয়। গত সোমবারই সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। আর বৃহস্পতিবার থেকে জম্মু-কাশ্মীর আগের মতোই উন্মুক্ত হল পর্যটকদের জন্য।

পুজোয় অনেকেই ভূস্বর্গে ভ্রমণের পরিকল্পনা করেছিলেন। অনেকেই টিকিট ও হোটেল বুকিংও করেছিলেন। কিন্তু শেষপর্যন্ত তা বাতিল করতে হয়। তবে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে সেই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় দীপাবলিতে ভূস্বর্গে ভ্রমণে আর কোনও বাধা থাকল না পর্যটকদের। 

সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে যাতে কাশ্মীরে অশান্তি মাথাচাড়া দিতে না পারে সেজন্য স্থানীয় রাজনীতিবিদদের এতদিন ঘরবন্দি করে রাখা হয়। এমনকী ফোন ও ইন্টারনেট সংযোগও বন্ধ রাখা হয়েছিল। তবে ধীরে ধীরে ফের উপত্যকাকে স্বাভাবিক ছন্দে ফেরানোর চেষ্টা চলছে। বুধবার থেকেই  খুলে দেওয়া হয়েছে  উচ্চমাধ্যমিক স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। এবার দুমাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে ভূস্বর্গে  প্রবেশের অনুমতি পেলেন পর্যটকরা।