করোনভাইরাস মহামারির পরিস্থিতি অনুযায়ী কেন্দ্রীয় সরকার কিংবা ভারতের অন্যান্য রাজ্যগুলি যেখানে স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনা করছে, সেখানে নজিরবিহীন পদক্ষেপ নিল কেরল। দক্ষিণের এই রাজ্যের মহামারির প্রসারণ রোখার প্রয়াস সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। এমনকী বিশ্বের অনেক দেশে অনুসরণ করা হয়েছে 'কেরল মডেল'। এবার আরও একবার পথ দেখালো বিজয়নের রাজ্য। রবিবার রাজ্য মহামারি রোগ অধ্যাদেশ সংশোধন করে পরবর্তী এক বছরের জন্য কেরলে কোভিড-নিয়ন্ত্রণ বিধি জারি করা হয়েছে।

কেরলে বর্তমানে ধীরে ধীরে হলেও ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। তাই দেরি না করে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে রাজ্য সরকার এই নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে। 'কেরল মহামারি রোগ করোনাভাইরাস রোগ (কোভিড -১৯) অতিরিক্ত বিধি, ২০২০' নামে তৈরি করা এই নতুন বিধিবিধান ২০২১ সালের জুলাই মাস অথবা সরকারের পরবর্তী নির্দেশ অবধি রাজ্যে কার্যকর থাকবে বলে জানানো হয়েছে। অর্থাৎ আগামী একবছর মানুষকে মাস্ক পরতে হবে, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং বড় জমায়েত এড়িয়ে চলতে হবে।

মানুষ এইসব বিধান যাতে মেনে চলেন, সেই বিষয়টা নিশ্চিত করতে হবে জেলাশাসকদের। এই বিধি লঙ্ঘন করলে কেরল মহামারী রোগ অধ্যাদেশ, ২০২০ এর বিধান অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া হবে।

১. কেরলের দারি করা এই বিধিগুলির মধ্যে রয়েছে, সরকারি স্থান, কর্মক্ষেত্র, যে কোনও প্রকাশ্য জায়গা, যানবাহন এবং পরিবহণের সময় মাস্ক বা অন্য আচ্ছাদন দিয়ে মুখ এবং নাক ঢেকে রাখতে হবে।

২. প্রকাশ্য জায়গায় দুই ব্যক্তির মধ্যে অন্তত ছয় ফুটের দূরত্ব রাখতে হবে।

৩. বিবাহের অনুষ্ঠানে একসঙ্গে সর্বাধিক পঞ্চাশজনের বেশি জনসমাগম চলবে না। স্যানিটাইজার, মাস্ক এবং ছয় ফুটের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বিবাহ বা অনুরূপ অনুষ্ঠানে স্যানিটাইজার সরবরাহ করতে হবে আয়োজকদের।

৪. অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় একসঙ্গে সর্বাধিক ২০ জন অংশ নিতে পারবেন। এই ক্ষেত্রেও মাস্ক, স্যানিটাইজার এবং ছয় ফুটের দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কোভিড রোগী বা কোভিড সন্দেহভাজন রোগীর মৃত্যুর ক্ষেত্রে, ভারত সরকার এবং রাজ্য সরকারের নির্দেশাবলী মানতে হবে।

৫. মিটিং, মিছিল, ধরনা, জমায়েত, বিক্ষোভ ইত্যাদি সামাজিক সমাবেশের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের লিখিত অনুমতি লাগবে। এই জাতীয় সামাজিক সমাবেশে সর্বাধিক দশ জন জড়ো হতে পারবেন। তাদের মাস্ক, স্যানিটাইজার ব্যবহার এবং ছয় ফুট দূরত্বের বিধি মানতে হবে।

৬. দোকান এবং অন্যান্য বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে, ছয় ফুটের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। একসঙ্গে সর্বোচ্চ কতজনকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে, তা নির্ভর করবে ঘরের আকারের উপর। তবে গ্রাহকের সংখ্যা কখনই কুড়ির বেশি হবে না।

৭. কোনও পাবলিক প্লেস, রাস্তা বা ফুটপাথে থুথু ফেলা নিষিদ্ধ।

৮. ভিন রাজ্য বা ভিন দেশ থেকে কেরলে আসতে গেলে রাজ্য সরকারের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয় বিবরণ দিতে হবে।

৯. আন্তঃরাজ্য সড়ক পরিবহন স্থগিত থাকবে।