কেরলে মত্ত আইএএস অফিসারের গাড়ির সামনে পড়ে প্রাণ হারালেন সাংবাদিক। শুক্রবার মধ্যরাতে এই ঘটনাটি ঘটে তিরুঅনন্তপুরমে। মত্ত অবস্থায় রাত দেড়টা নাগাদ গাড়ি চালাচ্ছিলেন কেরলের আইএএস অফিসার শ্রীরাম ভেঙ্কটরমন। প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি, গভীর রাতে এক মহিলাকে সঙ্গে নিয়ে ফিরছিলেন ওই আইএএস অফিসার। গাড়ির গতি বেশি থাকায় নিয়ন্ত্রণ হরিয়ে সাজোরে তা ধাক্কা মারে এক মোটরবাইক চালককে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মোটরবাইক চালকের। 

পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে নিহত ব্যক্তি কেরলের একজন সাংবাদিক। ৩৫ বছরের ওই সাংবাদিকের নাম কে এম বশির। তিনি 'সিরাজ' নামে মালায়ালাম ভাষায় একটি সংবাদপত্রের ব্যুরো অফ চিফ ছিলেন। ঘটনার জেরে আহত হন অভিযুক্ত আইএএস অফিসার শ্রীরাম ভেঙ্কটরমন-ও।
   
আইএএস অফিসার শ্রীরাম ভেঙ্কটরমন মত্ত অবস্থায় থাকলেও তিনি গাড়ি থেকে নেমে আসেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, বাইক চালককে কিছু প্রথমিক চিকিৎসা দেওয়ারও চেষ্টা করেন তিনি। তাতে কোনও লাভ হয়নি। কারণ, ততক্ষণে বাইক চালকের মৃত্যু হয়েছিল। তার আগেই মারা গিয়েছিলেন তিনি। এমনটাই দাবি করেছেন ওই প্রত্যক্ষদর্শী। 

আমেরিকাতে এক বছর কাটানোর পর গত সপ্তাহেই কেরলে ফেরেন অভিযুক্ত আই এ এস অফিসার। ২০১২ সালের  আইএএস পাশ শ্রীরাম ভেঙ্কটরমনকে রাজ্যের ল্যান্ড রেকর্ডস ও সার্ভে ডিপার্টমেন্টের ডিরেক্টর পদে নিযুক্ত করা হয়। ১ অগাস্ট তিনি সেই পদে কাজও শুরু করেন। 

প্রশাসন সূত্রে খবর, এর আগে কেরলের ইডুক্কি জেলার দেবীকুলামে সাব কালেক্টর পদে যুক্ত ছিলেন তিনি। সেখানে এক বিধায়কের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ায় তাঁকে কুনজরে পড়তে হয়, তার জেরে তাকে অন্যত্র চলে যেতে হয়েছিল। গোটা ঘটনায় অভিযুক্ত আইএএস অফিসার শ্রীরাম ভেঙ্কটরমন মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বলে তার পরিবার সূত্রে জানানো হয়েছে। সাংবাদিকের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন ও সেখানকার বিরোধী দলনেতা রমেশ চেন্নিথালা।