হিসেব বহির্ভূত টাকা উদ্ধার মামলায় মুকুল রায়কে জেরা শুরু করল কলকাতা পুলিশ। বিজেপি নেতার দিল্লির বাড়িতে গিয়ে এ দিন বেলা এগারোটা নাগাদ জেরা শুরু করেন পুলিশ অফিসাররা। দেড় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তাঁকে জেরা করা হয়। 

বৃহস্পতিবারই দিল্লি হাইকোর্ট এই মামলায় দশ দিন মুকুল রায়কে গ্রেফতার করা যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছিল। একই সঙ্গে আদালত জানিয়ে দেয়, পুলিশের জেরার মুখোমুখি হতেই হবে বিজেপি নেতাকে। সেই মতো এ দিনই মুকুলকে জেরা করতে পৌঁছে যান পুলিশ অফিসাররা। জেরা চলাকালীন মুকুলের বাড়িতে আসেন তাঁর আইনজীবীও। এর আগে মুকুল দাবি করেছিলেন, জেরা করলে দিল্লিতে গিয়ে তাঁকে জেরা করতে হবে। কারণ, তিনি দিল্লির বাসিন্দা। 

গত বছরের ৩১ জুলাই বড়বাজার থানা এলাকায় এক সরকারি কর্মীর কাছ থেকে হিসেব বহির্ভূত প্রায় আশি লক্ষ টাকা উদ্ধার করে কলকাতা পুলিশ। এই মামলায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়। মামলার তদন্তে মুকুল রায়ের নাম উঠে আসে বলে তদন্তকারীদের দাবি। সেই মামলাতেই কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে মুকুল রায়কে জেরা করার জন্য ডেকে পাঠানো হয়। তাতেও তিনি সাড়া না দেওয়ায় মুকুলকে সমন পাঠায় ব্যাঙ্কশাল আদালত। এর পরেও মুকুল রায় হাজিরা না দেওয়ায় শেষ পর্যন্ত গত ২৯ জুলাই তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ব্যাঙ্কশাল আদালত। তার পাল্টা দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন করেন বিজেপি নেতা।