ভারত চিন সীমান্তের উত্তাপ নিয়ে আবারও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিশানা করেছে কংগ্রেস। এবার সুর আরও অনেকটাই চড়িয়ে দিয়েছে শতাব্দী প্রাচীন দলটি। 'স্পিক আপ ফর আওয়ার জওয়ান' সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই লাদাখে নিহত সৈন্যদের পাশে থাকার বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি ভারতীয় সেনা বাহিনীর মনোবল বাড়াতেও উদ্যোগ নিয়েছে কংগ্রেস। কিন্তু স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে চিন ইস্যকে কেন্দ্র করে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করতে পিছনা হয়নি কংগ্রেস। 

সীমান্ত ইস্যুতে এতদিন রাহুল গান্ধী ক্রমাগত নিশানা করে যাচ্ছিলেন মোদী সরকারকে। প্রথম থেকেই তাঁর দাবি ছিল সীমান্ত কী হচ্ছে তা জানার অধিকার দেশের মানুষের রয়েছে। কিন্তু এদিন সুর চড়িয়ে রাহুল গান্ধী বলেন, সীমান্তে কেন নিরস্ত্র অবস্থায় পাঠান হল শত্রু পক্ষের কাছে। পাশাপাশি স্যাটেলাইট ইমেজ, সমর বিশেষজ্ঞদের উদাহরণ টেনে এনে বলেন চিন এক জায়গায় নয় তিন জায়গায় ভারতের জমি অধিগ্রণ করেছে। প্রাধানমন্ত্রীকে তিনি চিন্তা করতে বারন করে বলেছেন গোটা দেশ তাঁর পাশে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী যদি বলেন যে এক ইঞ্চি জমিও কেউ নেয়নি তাহলে সুবিধে হয়ে যাবে চিনের। 

লাদাখ ইস্যুতে এদিন রণংদেহী ভূমিকা নিয়েছিলেন কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট সনিয়া গান্ধী। আরও একধাপ এগিয়ে সনিয়া গান্ধী প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছেন, চিনের হাত থেকে জমি ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য  কী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। পাশাপাশি গালওয়ান সংঘর্ষে নিহত জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধাও জানান। তিনি আরও দাবি করেন সীমান্তে যখন সমস্যা চলছে তখন প্রধানমন্ত্রী কিছুতেই পিছ হাঁটতে পারেন না। 


একই সুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিশানা করেন প্রিয়াঙ্কা  গান্ধী বঢ়রা। তিনি বলেন সেনাদের কেন নিরস্ত্র অবস্থায় পাঠান হয়েছিল তাঁর উত্তর দিতেই হবে প্রধানমন্ত্রীকে। 


রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মনে চিন ইস্যুতে হাতির করে নিজেদের জমি পুনরুদ্ধারের মরিয়া প্রচেষ্টা চালাচ্ছে কংগ্রেস। আর সেই প্রচেষ্টায় আবারও সামনের সারিতে রয়েছে গান্ধী পরিবার।