মহারাষ্ট্রে বাড়তে থাকা করোনা সংকটের মধ্যেই দেখা দিল নতুন আতঙ্ক। পুলিশ জানিয়েছে শনিবার ভোরে নাসিক শহরের ইন্দিরা নগর এলাকায় একটি চিতার আক্রমণে জখম হয়েছেন দু'জন। তবে তার আগে মুম্বইয়ের দুটি এলাকাতেও চিতাটিকে দেখা গিয়েছিল এবং সে একজনের উপর হামলা চালায় বলেও খবর। এদিন ভোরে চিতাটিকে দেখা গিয়েছে একটি হাসপাতালে, এমনটাও দাবি করছেন অনেকে।

নাসিক পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, শনিবার ভোর সাড়ে পাঁচটা নাগাদ চিতাটি ইন্দিরা নগরের রাজসারথি হাউজিং সোসাইটিতে ঢুকে পড়েছিল। একটি বৃদ্ধ সেই সময় প্রাতঃভ্রমণে বের হচ্ছিলেন। সেই সময় সিঁড়িতেই ওই প্রবীণ নাগরিকের উপর চড়াও হয় চিতাটি। আতঙ্কে ওই ব্যক্তি অ্যালার্ম বাজিয়ে দেন। সেই আওয়াজে চমকে বন্যপ্রাণীটি আবাসনের বাইরে পালিয়ে যায়। বাইরে রাস্তায় আবার আরেক পথচারীকেও জখম করেছে সে।

পুলিশ এবং বনবিভাগকে তৎক্ষণাৎ সতর্ক করেছিলেন রাজসারথি আবাসনের ববাসিন্দারা। তবে এদিন বিকাল পর্যন্ত চিতাটির কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে এদিন তারও আগে নাসিকেরই 'সুযশ হাসপাতালে' চিতাটিকে দেখা গিয়েছিল বলে দাবি করেছেন অনেকে। সেকানকারস একটি ভিডিও-ও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।  

আরও একটি সিসিটিভি ক্যামেরায় ভিডিওয় সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে। সেই ভিডিওটিতে শুক্রবার সন্ধেবেলা একটি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ। সেখানেও এক ব্যক্তিকে চিতাটি হামলা করছে, এমন ছবি ধরা পড়েছে। সেটিও নাসিকের রাস্তা বলে দাবি করা হলেও সময় মিলছে না। অনেকে আবার বলছেন, ইন্দিরা নগরের আগে, চিতাটিকে মুম্বই-এর নাকা অঞ্চল এবং শহরের তিড়কে কলোনীতে দেখা গিয়েছিল।

এর আগে লকডাউনের মধ্য়ে হায়দরাবাদেও শহরাঞ্চলে একটি চিতা ঢুকে পড়েছিল। আর দিন দুয়েক আগেই কর্নাটকে ভালুকের হামলায় চোখ নষ্ট হয়ে গিয়েছে এক প্রৌঢ়ার। জখম হয়েছিলেন তাঁর ছেলেও।