ভোটের আগে চরম সংকটের মধ্যে পড়তে চলেছে পদুচেরির কংগ্রেস সরকার। আগামী সোমবার অর্থাৎ ২২ ফেব্রুয়ারি পদুচেরি বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য আস্থা ভোটের নির্দেশ দিয়েছেন লেফট্যানেন্ট গভর্নর তামিলিসাই সৌন্দররাজন। তিনি বলেছেন ক্ষমতাসীন জোটশক্তির পাশাপাশি বিরোধী দলের বিধায়ক সংখ্যা ১৪। আর সেই কারণেই তিনি আস্থাভোট নিতে চাইছেন। 

বৃহস্পতিবার বিরোধী দলের নেতারা সেখানের গভর্নরের সঙ্গে দেখা করেন। তবে তার আগেই বিজেপি ও এআইএডিমএমকে-র বিধায়কদের একটি মোমোরেন্ডাম পাঠিয়েছিল  আস্থাভোটের দাবি জানিয়ে। সেখানে বিরোধী দলের ১৪ জন বিধায়কের সই ছিল বলেই সূত্রের খবর। তারপরই মুখ্যমন্ত্রী সিএমভি নারায়ণস্বামী সেখানকার গভর্নরের সঙ্গে দেখা করেন। তারপরই আগামী সোমবার বিকাল ৫টা নাগাদ আস্থাভোটের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 


সবমিলিয়ে কংগ্রেসের ৪ জন বিধায়ক এপর্যন্ত পদত্যাগ করেছেন। এআইএডিএমকে দাবি করেছে সংখ্যা গরিষ্ঠতার বিচারে কংগ্রেস কার্যত ব্যার্থতা দিকে চলে গেছে কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবেও ব্যর্থ নারায়নস্বামী। বিরোধীদের দাবি কোনও প্রতিশ্রুতি পালন করেননি তিনি। আর সেই কারণেই আস্থাভোটই একমাত্র পথ। আগামি এপ্রিল মাসেই পদুচেরিতে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগেই লেফট্যানেন্ট গভর্নরের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে কিরণ বেদীকে। তার পরিবর্তে দায়িত্বে দেওয়া হয়েছে তেলাঙ্গনার রাজ্যপালকে।