একটি দুটি নয়, লখনউয়ের এক ২০ বছর বয়সী যুবতীকে গত ছয় দিনে ৪১ টি আলাদা আলাদা নম্বর থেকে অশ্লীল কল এবং বার্তা পাঠানো হয়েছে। শেষে অতিষ্ট হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। এই বিষয়ে মঙ্গলবার লখনউ-এর কৃষ্ণনগর থানায় একটি এফআইআর দায়ের করেছেন।

অভিযোগে স্নাতক স্তরের ওই ছাত্রী জানিয়েছেন, গত ৩ ফেব্রুয়ারি প্রথম তাঁর ফোনে হোয়াটসঅ্যাপে তাঁর কাছে একটি অশালীন বার্তা আসে। একটি নির্দিষ্ট নম্বর থেকে তারপর গাদা গাদা অস্লীল বার্তা আসতে থাকে। ওই যুবতী খোঁজ করে দেখেন, সেটি একটি আন্তর্জাতিক নম্বর। এরপর তিনি ওই নম্বরটি ব্লক করে দিয়েছিলেন। তখনই অন্য আরেকটি নম্বর থেকে বার্তা আসা শুরু হয়। সেটি ব্লক করলে আরেকটি। এভাবে মোট ৩০টি নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা আসতে থাকে।

সবকটি নম্বরই ব্লক করেছিলেন ওই যুবতী। এরপর হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা আসা বন্ধ হয়, কিন্তু শুরু হয় বিভিন্ন নম্বর থেকে অশ্লীল প্রস্তাব দিয়ে ফোন আসা। মেয়েটি জানিয়েছে, তাকে ১১টি আলাদা আলাদা নম্বর থেকে কল করা হয়েছে। একের পর এক ওই নোংরা ফোন কল ও বার্তায় রীতিমতো মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন ওই যুবতী।

প্রথমদিকে, সামাজিক কলঙ্কের ভয়ে তিনি এফআইআর করতে চাননি। কাউকএই না জানিয়ে নিজের মধ্যেই চেপে রেখেছিলেন। কিন্তু পরে তাঁর বাবা-মা এবং বন্ধুবান্ধব জানতে পেরে তাঁকে পুলিশে অভিযোগ জানাতে রাজি করায়। এরপরই কৃষ্ণনগর থানায় যাবতী ঘটনা জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

সেখানকার স্টেশন হাউস অফিসার রামকুমার যাদব বলেছেন, অভিযোগকারীর দেওয়া সমস্ত নম্বরে তারা নজরদারি করছেন। এর পিছনে কারা যুক্ত তা বোঝার চেষ্টা করা হচ্ছে। আসামিদের শীঘ্রই সন্ধান পাওয়া যাবে বলে তারকা মনে করছে।