মহারাষ্ট্রের বিধানভবনে শপথ নিলেন বিধায়করা। তাঁদের শপথবাক্য পাঠ করালেন প্রোটেম স্পিকার কালীদাস কোলম্বকর। বিধায়ক হিসাবে শপথ নিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশও। 

এদিকে শিবসেনা, এনসিপি এবং কংগ্রেসের জোট সরকারের শেষপর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন উদ্ধব ঠাকরে। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন উদ্ধব। এনসিপি এবং কংগ্রেস থেকে ২ জন হতে চলেছেন উপমুখ্যমন্ত্রী। 

 

বুধবার সকাল থেকেই শপথ নেওয়ার জন্য এনসিপি-শিবসেনা ও কংগ্রেস বিধায়করা বিধানভবনে পৌঁছতে শুরু করেন। বিধানসভার বাইরে বিধায়কদের স্বাগত জানান শরদ কন্যা সুপ্রিয়া সুলে। সুপ্রিয়া  স্বাগত জানান দাদা অজিত পাওয়ারকেও। দাদার সঙ্গে কোনও ঝামেলা নেই বলেই হাসতে হাসতে এদিন দাবি করেন শরদ কন্যা। 

 

মহারাষ্ট্রের নবনির্বাচিত বিধায়কদের শপথগ্রহণ চলবে এদিন বিকেল ৫টা পর্যন্ত। বুধবারই স্পিকার নির্বান হবে মহারাষ্ট্র বিধানসভার। 

শিবাজী পার্কে বৃহস্পিতবার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন উদ্ধব ঠাকরে। এদিকে বুধবার বিধানসভায় যাওয়ার আগে সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে পুজো দিতে যান আদিত্য ঠাকরে। 

 

মঙ্গলবার জোট রাজভবেন সরকার গড়ার দাবি জানায়। তার আগে মুম্বইয়ের ট্রাইডেন্ট হোটেলে যৌথ বৈঠকে বসেন শিবসেনা-এনসিপি ও কংগ্রেসের নেতারা। সেখানে সর্বসম্মতিক্রমে ‘মহা বিকাশ আঘাডি’ জোটের নেতা এবং আগামী পাঁচ বছরের জন্য মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে উদ্ধব ঠাকরের নাম পাশ হয়।  আগামী ২৮ নভেম্বর অর্থাৎ বৃহস্পতিবার শিবাজি পার্কে অনুষ্ঠিত হবে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। সেখানেই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন  উদ্ধব ঠাকরে। ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকেও আমন্ত্রণ জানাতে চলেছে শিবসেনা।