করোনা সংকট আর লকডাউনে মাঝেই রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার প্রকাশ করা তথ্য নিয়ে রীতিমত সরগরম জাতীয় রাজনীতি। ইতিমধ্যেই আরবিআই-এর লিস্টকে হাতিয়ার করে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আসরে নেমেছে কংগ্রেস। আর সেই তালিকায় প্রথম নামই রয়েছে বিজনেস টাইকুন মেহুল চোকসি। সম্পর্কে যিনি নীরব মোদীর মামা।  বর্তমানে তিনি অবশ্য এই দেশেরই বাসিন্দা নন। বর্তমানে তিনি অ্যান্টিগুয়া ও বারবাডোসের  নাগরিক। আর দেশছাড়া ভাগ্নেও থাকেন লন্ডনে।  
 
গীতাঞ্জলী, জিলি, নক্ষত্রসহ একাধিক সংস্থার কয়েক লক্ষ টাকা ঋণ রয়েছে মোহুল চোকসির মাথায়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সেই টাকার পরিমাণ ৬৮,৬০৭ কোটি টাকা। আরবিআই জানিয়েছে এই টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া যেতেই পারে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আরইআই অ্যাগ্রোর নাম।তার কারণেই ইতিমধ্যে ঝুনঝুনওয়ালা দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে  তদন্ত শুরু করেছে ইডি। আরবিআই-এর তালিকার ৪ নম্বরে রয়েছে বিক্রম কোঠারির নাম। রোটম্যাককাণ্ডে তিনি ঋণ খেলাপি। ইতিমধ্যেই তাঁর বাবা রাহুল কোঠারিকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। 

আরবিআই-এর প্রকাশ করা তালিকায় নাম রয়েছে বাবা রামদেবেরও। তাঁর বিরুদ্ধে ২২১২কোটি টাকা ঋণ খেলাপির অভিযোগ রয়েছে। এই তালিকায় স্বভাবতই রয়েছে লিকার ব্যারন বিজয় মালিয়ার নাম। যাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে রীতিমত চেষ্টা চালাচ্ছে ভারতীয় ব্যাঙ্ক গুলি। 

কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি সংসদে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের কাছে শীর্ষ ঋণ খেলাপিদের তালিকা চেয়েছিলেন। কিন্তু তা এড়িয়ে যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। কিন্তু তথ্যের অধিকার আইনের মাধ্যমে আরবিআই থেকে এই তথ্য পেয়েছেন সকেত গোখেল।