কলকাতার বাসে মহিলাকে দেখে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করা ব্যক্তির কথা অনেকেরই মনে আছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও ছড়িয়ে যাওয়ার পরে তৎপর হয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতারও করে পুলিশ। এবারেও একই ঘটনা ঘটল। কেবল বদলে গেল স্থানকাল। গুরুগ্রামে মেট্রো স্টেশনের মধ্যেই নিগ্রহের শিকার হলেন এক মহিলা। অভিযোগ তাঁকে লক্ষ্য করে হস্তমৈথুন করেছে এক ব্যক্তি।

ওই মহিলা পুলিশকে জানান সোমবার রাত্রি নটা নাগাদ গুরুগ্রামের হুডা সিটি  সেন্টার মেট্রো স্টেশনের চলন্ত সিঁড়ি দিয়ে নামছিলেন তিনি। তখনই দেখতে পান, এক ব্যক্তি তাঁকে লক্ষ্য করে হস্তমৈথুন করছে। অপমানিত মহিলা দাঁড়িয়ে থাকেননি। সপাটে চড় কষান ওই যুবককে।তারপরে সাহায্যের আকুতি জানিয়ে চিৎকার করতে থাকেন। কিন্তু সাড়া দেয়নি দিল্লি। এরপর ওই মহিলা গোটা ঘটনা ফেসবুকে লেখেন। ট্যাগ করেন নরেন্দ্র মোদী এবং অরবিন্দ কেজরিয়ালকে। মহিলা স্পষ্টই লেখেন, "দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী মেয়দের জন্যে বিনে পয়সায় মেট্রো চলাচলের ব্যবস্থা করতে পারছেন অথচ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারছেন না।" 

প্রসঙ্গত দিন কয়েক আগেই দিল্লি মেট্রোয় মহিলাদের সম্পূর্ণ বিনামূল্যে যাতায়াতের সুযোগ দেওয়ার কথা ঘোষণা করে কেজরিওয়াল সরকার। স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠছে, যদি  নিরাপত্তাই না থাকে তা হলে বিনামূল্যে যাতায়াতের সুবিধে নিয়েই বা কী করবে দিল্লির মহিলারা!

প্রসঙ্গত অভিযোগ পেয়েই নড়েচড়়ে বসে দিল্লি পুলিশ দিল্লি পুলিশের সূত্রে জানান হয়েছে,  ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে।  এদিনের ঘটনা আরও একবার মনে করিয়ে দিল নির্ভয়ার করুণ পরিণতি। দিল্লি আজও এতটুকুও বদলায়নি।