মনে করিয়ে দিল হুড়মুড়িয়ে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ভেঙে পড়ার কথা। ৬০-মিটার উঁচু ১৯-তলা বিল্ডিং, নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণে কয়েক সেকেন্ডে মিশে গেল মাটিতে। শনিবার সকালে এরকমই দৃশ্য চোখে পড়ল কেরলের রাজধানী কোচির  ম্যারাডু পৌরসভা এলাকায়।

উপকুল বিধি না মেনে চারটি বিল্ডিং তৈরি করা হয়েছিল। এই অবৈধ বাড়িগুলি ভেঙে দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। শনিবার থেকেই সেই আদেশ বাস্তবায়ন শুরু করা হল। এদিন সকালে চারটি ভবনের দুটি ভেঙে ফেলা হয়েছে।

এদিন সকালে প্রথমে ১৯ তলার 'এইচটুয়েন্টি হোলি ফেইথ' নামের অ্যাপার্টমেন্টটি ধ্বংস করা হয়। ১০ টা নাগাদই বন্ধ করে দেওয়া হয় আশপাশের রাস্তা। সেইসঙ্গে বহুদূর পর্যন্ত এলাকা পুরো খালি করে ঘিরে দেয় পুলিশ। ১১টা নাগাদ বাড়িটি ভেঙে দেওয়া হয়। এই ধ্বংসযজ্ঞটি দেখতে, পুলিশি কর্ডনের বাইরে ভিড় জমান হাজার হাজার মানুষ।

'এইচটুয়েন্টি হোলি ফেইথ' অ্যাপার্টমেন্ট ধ্বংসের ভিডিও -

প্রথম বাড়িটির কয়েক মিনিট পরই দ্বিতীয় বাড়িটি ভাঙা হয়। এই টুইন টাওয়ার (দুটি ভবন) বিশিষ্ট অ্যাপার্টমেন্টটির নাম ছিল 'আলফা সিরিন'। এর দুটি ভবনই ছিল ১৯ তলার।

'আলফা সিরিন' অ্যাপার্টমেন্ট ধ্বংসের ভিডিও -

পরিবেশ রক্ষার জন্যই এই কাজ করতে হচ্ছে। এই চারটি অবৈধ আবাসনে মোট ২৪০টি ফ্ল্য়াট ছিল। এর ফলে সাড়ে তিনশোরও বেশি পরিবার বাসস্থান হারাচ্ছেন। তাঁরা আঙুল তুলছেন বিল্ডার মাফিয়া, স্থানীয় কর্তৃপক্ষের লোভ ও দুর্নীতির দিকে।