সকাল সকাল ঘটে গেল এক অস্বাভাবিক ঘটনা। রাজধানী জয়পুর থেকে প্রায় ৫৩০ কিলোমিটার দূরে রাজস্থানের জালোর জেলার সানচোর শহরে শুক্রবার সকালে আচমকা আকাশ থেকে নেমে এল এক রহস্যময় বস্তু। মাটিতে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে হল প্রচন্ড শব্দ। এই নিয়ে সানচোর শহরে দারুণ চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

সানচোরের এক বাসিন্দা জানিয়েছেন, এদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে তিনি বাড়ির বারান্দায় দাঁড়িয়ে ছিলেন। সেই সময়ই আকাশ থেকে জ্বলন্ত কিছু একটা পড়তে দেখেন তিনি। তাঁর প্রথমেই মনে হয়েচিল সেটা কোনও বোমা। সেই ধারণা আরও বাড়িয়ে বস্তুটি মাটিতে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে একটি বিস্ফোরণের মতো শব্দ হয়। সেই শব্দেই ওই এলাকার বেশিরভাগ মানুষের এদিন ঘুম ভেঙেছে। প্রায় দুই কিলোমিটার ব্যাসার্ধ এলাকা জুড়ে ওই বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছিল। শুধু শিশুরাই নয়, প্রায় সকলেই ওই শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।

পরে স্থানীয়রা কাছারকাছি গিয়ে দেখেছিলেন বস্তুটি এত জোরে মাটিতে পড়েছে যে মাটিতে প্রায় এক ফুট গভীর গর্ত তৈরি হয়ে গিয়েছে। সেইসঙ্গে বস্তুটি থেকে তীব্র উত্তাপ বের হচ্ছিল। সানচোর শহরের উপকণ্ঠেই এক খোলা মাঠে ওই উল্কার মতো বস্তুটির এসে পড়ে। স্থানীয়দের দাবি সকাল ৭টা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। এরপরই তাঁরা পুলিশে খবর দেন। স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ এবং তথ্য দপ্তরের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

সানচোরের ম্যাজিস্ট্রেট ভূপেন্দ্র যাদব জানিয়েছেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে তাঁরা সেখানে গিয়ে দেখেছিলেন একটি পাথরের মতো শক্ত বস্তু মাটিতে পড়ে গেঁথে গিয়েছে। বস্তুটি থেকে তীব্র তাপ নির্গত হচ্ছিল বলে তাঁরা স্থানীয়দের বস্তুটি থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন। ঠান্ডা হওয়ার পরে, তাঁরা প্রাথমিক পরীক্ষার জন্য সেটিকে নিয়ে যান। ওজন করে দেখা যায়, সেটির ওজন প্রায় ২.৭৮ কিলোগ্রাম। স্থানীয় এক স্বর্ণকার পুলিশ এবং প্রশাসনের উপস্থিতিতে বস্তুটি পরীক্ষা করে দেখে দাবি করেছেন, বস্তুটির বেশিরভাগটাই জার্মেনিয়াম, প্লাটিনিয়াম, নিকেল এবং আয়রনের মতো ধাতব পদার্থে তৈরি।

স্থানীয় প্রশাসন ভারতের জিওগ্রাফিকাল সার্ভের আহমেদাবাদ ও জয়পুর অফিসের ভূতাত্ত্বিকদের দলগুলির সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তাঁরা আরও পরীক্ষা করে জানাবেন, বস্তুটি সত্যিই কোনও উল্কা, না অন্য কিছু। বর্তমানে বস্তুটিকে সানচোর থানাতে রাকা হয়েছে।