ভোটের ফল ঘোষণার পর ১৪ দিন কেটে গিয়েছে। বিজেপি-শিবসেনা ক্ষমতার দ্বন্দ্ব এখনও মেটেনি। বৃহস্পতিবারই দেবেন্দ্র ফড়নবিশ সরকারের মেয়াদ ফুরোচ্ছে। এদিন রাজ্য়ে এসে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা নিতিন গড়করি শিবসেনার সমর্থনেই বিজেপির সরকার গঠনের বিষয়ে আত্মবিশ্বাস দেখিয়েছেন, কিন্তু তারপরেও বিন্দুমাত্র নরম হওয়ার ইঙ্গিত নেই শিবসেনার পক্ষ থেকে।

তবেই বিজেপির সঙ্গে আলোচনা

এদিন উদ্ধব ঠাকরের বাসভবনে বৈঠক করেন শিবসেনা বিধায়করা। সেখানে উদ্ধব ঠাকরে দলীয় বিধায়কদের বলেন, তিনি জোট ভাঙতে চান না। কিন্তু তিনি চান বিজেপি লোকসভা ভোটের আগে, ক্ষমতার সমান সমান ভাগের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা যেন রক্ষা করা হয়। সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারেরও সমান সমান ভাগ দিতে প্রস্তুত থাকলে তবেই বিজেপির সঙ্গে আলোচনায় বসবে শিবসেনা।

নজরবন্দি বিধায়করা

দিন দুয়েক আগে বিজেপি দাবি করেছিল অন্তত ২৫ জন শিবসেনা বিধায়ক তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। বুধবার রাতে শিবসেনার পক্ষ থেকেও অভিযোগ করা হয় তাদের বিধায়কদের নানাভাবে ভাঙানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। এই অবস্থায় এদিন মাতশ্রী-তে বৈঠকের পরই মুম্বইয়ের এক হোটেলে রাখা হয়েছে। শীর্ষ নেতৃত্ব নজর রাখছে তাদের উপর।

মুখ্যমন্ত্রী একজন সেনাই

এদিনও শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত দাবি করেছেন, মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে একজন শিবসেনা নেতাই বসবেন। তাঁর মতে ক্ষমতার লোভে শিবসেনা কখনও মিথ্যা বলে না, কাউকে পিছন থেকে ছুড়ি মারে না।

বিজেপি আগে ঘোষণা করুক

শিবসেনার বক্তব্য বিজেপি আগে ঘোষণা করুক যে তারা সরকার গঠন করতে পারছে না। তারপর কাদের নিয়ে সরকার গড়বে সেই সিদ্ধান্ত নেবে শিবসেনা।