প্রত্যেক বছরের মতো মঙ্গলবারও আরএসএস-এর পক্ষ থেকে বিজয়া দশমী পালন করা হচ্ছে। রীতি মেনে নাগপুরের সদর দফতরে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত এদিন 'শস্ত্র পূজা' করলেন। আর তারপরই মুখ খুললেন ভারতে গণহিংসায় মৃত্যু নিয়ে।

নবরাত্রী বা দুর্গাপুজো, যাই বলা হোক, শেষদিনে এসে পৌঁছেছে। মঙ্গলবার শুভদশমী। গোটা ভারতে পালিত হচ্ছে দশেরা উৎসব। আর এই দিনটা আরএসএস সংঘচালকদের কাছে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। ১৯২৫ সালে এই দিনেই রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। আর এদিনের বিশেষ ভাষণে মোহন ভাগবত মুখ খুললেন গণহিংসা নিয়ে।

এদিন তিনি দাবি করেন, ভারতে গণহিংসার ঘটনা বলে যেগুলিকে চিহ্নিত করা হচ্ছে, তার সবই আসলে সামাজিক হিংসার ঘটনা। তাঁর মতে এটা করা হচ্ছে দেশ ও হিন্দু সম্প্রদায়ের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্যই। একই সঙ্গে এই ভাবে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মনে ভয় ধরানো হচ্ছে।

নবরাত্রীর মধ্য়েও রাজস্থানের আলওয়ারে এক মুসলিম দম্পতিকে দিয়ে জোর করে জয় শ্রীরাম বলানোর ঘটনা ঘটেছে। যৌন নিগ্রহের শিকারও হতে হয়েছে তাদের। দেশে যখনই এই ধরণের ঘটনা ঘটে তখনই আরএসএস তথা বিজেপির দিকে আঙুল তোলেন বিরোধীরা।

সংঘ প্রধানের দাবি, এই ধরণের ঘটনাগুলির সঙ্গে আরএসএস-এর কোনও যোগই নেই। বরং আরএসএস-এর সদস্যরা এই ধরণের ঘটনা আটকানোর চেষ্টা করে থাকেন। তিনি আরও দাবি করেন, বিরোধীরাই এই ঘটনাগুলিকে খুঁচিয়ে বড় করে থাকে। বিষয়গুলি নিয়ে ঝগড়া বাধাতে চায়। তাঁর মতে  এটা আসলে একটা ষড়যন্ত্র।