প্রবল বৃষ্টিপাতের জেরে কার্যত বানভাসি কেরল। টানা বৃষ্টির জেরে কেরলে জারি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। যার ফলে ফিরে এসেছে কেরলে গত বছরের বন্যার ভয়াবহতা। ইতিমধ্যেই  প্রবল বন্যার জেরে প্রাণ গিয়েছে অন্তত ৪২ জনের। ২৭ জন মানুষ বন্যার ফলে নানারকমভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন জলবায়ুর পরিবর্তন এই অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের অন্যতম কারণ। 

দিল্লির মৌসম ভবন সূত্রে খবর, আগামী দিনেও আরও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে। সেই মোতাবেক রাজ্যের নয় জেলায় জারি করা হয়েছে লাল সতর্কতা। যার মধ্যে রয়েছে, এরনাকুলাম, ইদুক্কি, ত্রিশূর, পালাক্কাড়, মালাপ্পুরম, কোজিকোডে, ওয়ানাড়, কুন্নুর, কাসারাগড়। মৌসম ভবনের তরফে জানানো হয়েছে, এই নয় জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা জারি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন- গাছ কাটায় চোখে জল, মণিপুরের সবুজ দূত এই ছোট্ট মেয়ে

 

শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, রাজ্যে মোট ৭৩৮টি ত্রাণ শিবির তৈরি করা হয়েছে। সেখানে ঠাঁই নিয়েছেন প্রায় ৬৪ হাজার মানুষ।প্রসঙ্গত গত দু'দিনের টানা বৃষ্টিপাতের ফলে রাজ্যের রেল পরিষেবাও ব্যহত হয়েছে। প্রায় ২০টি ট্রেন বাতিল করে দেওয়া হয়েছে, সেইসঙ্গে একাধিক রেলের গতিপথও বদল করে দেওয়া হয়েছে বলে খবর।  জলমগ্ন পরিস্থিতি কোচির বিমানবন্দরেও। সেই কারণে কোচি বিমানবন্দরে বিমান চলাচল রবিবার দুপুর তিনটে পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে।