শুক্রবার নাসিক কেন্দ্রীয় কারাগারে মৃত্যু হল ১৯৯৩ সালের মার্চে মুম্বই-এর ধারাবাহিক বিস্ফোরণের অন্যতম আসামী ইউসুফ মেমন-এর। এই মামলার প্রধান ষড়যন্ত্রকারী টাইগার মেমন এখনও পলাতক। তার ছোট ভাই, ইউসুফ মেমনকে সন্ত্রাসবাদী হামলার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল এবং তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের সাজা দেওয়া হয়েছিল।

তবে ঠিক কী কারণে মৃত্যু হল ইউসুফ মেমন-এর, তা এখনও জানা যায়নি। আপাতত তার মরদেহ ধুলে-র এক হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

ইউসুফ মেমন-এর বিরুদ্ধে বেশ কিছু বিষয়ে অভিযোগ ছিল। তবে তার বিরুদ্ধে মূল অভিযোগ ছিল এই হামলার মূল পরিকল্পনাকারী টাইগার মেমন ও দাউদ ইব্রাহিম-কে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চালানোর জন্য তার মুম্বইয়ের বাড়ি ব্যবহার করতে দেওয়া। টাইগার ও ইউসুফের আরেক ভাই, ইয়াকুব মেমন-কে একই মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ডে দেওয়া হয়েছিল। ২০১৫ সালে নাগপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল।

১৯৯৩ সালের ১২ ই মার্চ মুম্বইয়ের ১২টি কৌশলগতভাবে সুবিধাজনক জায়গায় বোমা অল্প সময়ের মধ্যে পরপর বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। এই হামলায় অন্তত ৩১৫ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন। এই ১২টি জায়গার মধ্যে ছিল -  বেশ কিছু হোটেল, বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ, জাভেরি বাজারের সোনার গয়না কেন্দ্র, পাসপোর্ট অফিস, শিবসেনা ভবন। বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসবাদী হামলাগুলির মধ্যে ১৯৯৩ সালের মুম্বই ধারাবাহিক বিস্ফোরণকেও ধরা হয়।