জেএনইউ কাণ্ডের প্রতিবাদে ইন্ডিয়া গেটে আজাদ কাশ্মীরের পোস্টার দেখানোয় য়ুবতীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল মুম্বই পুলিশ। জানা গেছে, প্রতিবাদী ওই যুবতীর নাম মাহেক মির্জা প্রভু। মঙ্গলবারই তাঁর বিরুদ্ধে কোলাবা থানায় এই এফআইআর দায়ের হয়েছে।

— Jiten Gajaria (@jitengajaria) January 7, 2020  

সোমবার বিকেলে মুম্বইয়ে গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ার কাছে জেএনইউ-তে হামলার প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন ছাত্রছাত্রীরা। সেখানেই 'ফ্রি কাশ্মীর' লেখা পোস্টার হাতে এক মহিলার ছবি এবং ভিডিও ভাইরাল হল। এরপরই মহিলাকে 'বিচ্ছিন্নতাবাদী' আখ্য়া দিয়ে পাল্টা আন্দোলনে নামে বিজেপি। প্রশ্ন তোলা হয় শিবসেনা, কংগ্রেস ও এনসিপি সরকারের বিরুদ্ধেও। কীভাবে মুম্বইয়ের মতো জায়গায় দেশবিরোধী কার্যকলাপকে প্রশ্রয় দিচ্ছে মহারাষ্ট্র সরকার। এরপর থেকেই ওই যুবতীর খোঁজ শুরু করে পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে খবর, ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩-র বি ধারায় মাহেকের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে। দ্রুত তাঁকে ডেকে পাঠাবে পুলিশ। ইতিমধ্য়েই ওই ভিডিয়ো ও ইন্ডিয়া গেটের চারিদিকের ভিডিয়ো ফুটেজ সংগ্রহ করছে পুলিশ। তাঁর 'ফ্রি কাশ্মীর' পোস্টার নিয়ে বিতর্ক তৈরি হওয়ায়, এদিন একটি ভিডিয়ো মেসেজ রিলিজ করেন মুম্বইয়ের ওই লেখক-অভিনেত্রী। যাবতীয় বিতর্ক খণ্ডন করে মাহেক বলেন, ৩৭০ প্রত্যাহার পরবর্তী কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি থেকে মুক্তির কথা বলতেই তিনি এই পোস্টার ব্যবহার করেছেন। কাশ্মীরের জন্য় পৃথক স্বাধীন রাষ্ট্রের দাবিতে তিনি ওই পোস্টার লেখেননি। 

যদিও এর আগে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানান,বিগত কিছু মাস ধরে কাশ্মীরিদের মৌলিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। এই পোস্টারের মাধ্যমে তিনি সেই অধিকার ফেরানোর দাবি করছেন। বিজেপির  অভিযোগ, গ্রেফতারির ভয়ে এখন ভিন্ন সুরে গান ধরেছেন ওই য়ুবতী। রবিবার ছাত্র সংঘর্ষে উত্তাল হয়ে ওঠে জেএনইউ। এবিভিপি-র গুন্ডারা হস্টেলে ঢুকে তাণ্ডব চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বাম ছাত্ররা। এই হামলায় গুরুতর আহত হয়েছে বাংলার মেয়ে ঐশী ঘোষ।

রক্তাক্ত অবস্থায় বাম ছাত্র নেত্রী জানান, সন্ধেবেলায় এবিভিপি-র গুন্ডারা বিশ্ববিদ্য়ালয়ের হস্টেলে ঢুকে তাঁর ওপর হামলা চালায়। অভিযোগ, এ দিন সন্ধ্যার পর আচমকাই জেএনইউ ক্যাম্পাসের মধ্যে ঢুকে লাঠি, ব্যাট নিয়ে হামলা চালায় বহিরাগতরা। ঐশীর পাশাপাশি গুরুতর ভাবে আহত হন অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন। যার জেরে এইএমসের ইনটেনসিভ কেয়ারে ভর্তি করা হয় তাদের। তারই প্রতিবাদে ইন্ডিয়া গেটে সরব হন ছাত্রছাত্রীরা।