বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল কেরলের সিপিএম নেতা কোদিয়েরী বালাকৃষ্ণন-এর বড় ছেলে বিনয় বালাকৃষ্ণন কোদিয়েরীর বিরুদ্ধে। মুম্বই-এর মীরা রোডে বসবাসকারী এক মহিলা তাঁর বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ তুললেন। বছর তেত্রিশের ওই মহিলা আগে দুবাইতে একটি বারে ডান্সার ছিলেন। তাঁর অভিযোগ বিনয় বালাকৃষ্ণন ২০০৯ থেকে ২০১৮ সাল-এর মধ্যেবর্তী সময়ে তাঁকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ করেন। গত ১৩ জুন তারিখে এই অভিযোগের ভিত্তিতে ওশিওয়ারা থানায় একটি এফআইআর দায়ের করা হয়। 

ওই মহিলার দাবি, অভিযুক্ত বিনয় বিনোদিনী বালাকৃষ্ণন ওরফে বিনয় বালাকৃষ্ণন কোদিয়েরীর সঙ্গে একটা ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল তাঁর। তিনি তাঁকে বারংবার বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিলেও তাঁকে বিয়ে করেননি। ২০১৮-র শেষের দিকে তিনি জানতে পারেন কেরলের ওই ব্যক্তি ইতিমধ্যেই বিবাহিত, এবং তাঁর দুটি সন্তানও রয়েছে। ওশিওয়ারা পুলিশ এই অভিযোগ পেয়েই ঘটনার পুর্ণাঙ্গ তদন্তে নামে।  

বয়ানে ওই মহিলা জানিয়েছেন যে, ২০০৯ সালে যখন তিনি দুবাইয়ের মেহফিল বারে কাজ করতেন সেই সময়েই বালাকৃষ্ণণের সঙ্গে পরিচয় হয় তাঁর। তাঁর অভিযোগ, দিনের পর দিন তাঁর জন্য বহু টাকা খরচ করেছে বালাকৃষ্ণণ, আর এইভাবেই তাঁর বিশ্বাস অর্জল করেছিলেন তিনি। ধীরে ধীরে তাঁদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। এরপর তাঁকে বিবাহের প্রতিশ্রুতি নিয়ে তাঁর সঙ্গে একাধিকবার সহবাস করেন তিনি। এর ফলো ২০১০ সালে সন্তানসম্ভবা হয়ে পড়েন ওই মহিলা। সন্তান জন্মের পরও একাধিক টালবাহানা করে বিয়ের কথা এড়িয়ে যেতেন বালাকৃষ্ণণ। এরপর একাধিক বাহানা করে ওই মহিলা এবং তাঁর সন্তানের দায়িত্ব নিয়ে অস্বীকার করেন ওই ব্যক্তি তারপরই সন্দেহ জাগে তাঁর। এরপর বালাকৃষ্ণনের স্ত্রী থাকার খবর পেয়েই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে। অভিযুক্ত বালাকৃষ্ণন কোদিয়েরীর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।