পয়লা ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় মোদী সরকারে প্রথম বাজেট। সাধারণ বাজেটে অন্তত ৫০টি পণ্যে আমদানি শুল্ক বৃদ্ধির পথে মোদী সরকার। এর মধ্যে রয়েছে অলেকট্রনিক্স, বৈদ্যুতিন সামগ্রী, রাসায়নিক দ্রব্য এবং হস্তশিল্পজাত সামগ্রী।  বিদেশ থেকে প্রতি বছর এই সমস্ত পম্য ভারতে আমদানি হয়, যার মূল্য গড়ে ৫৬,০০ কোটি মার্কিন ডলার। এই আমদানি পণ্যে এক বড় অংশ আসে চিন থেকে। 

পয়লা ফেব্রুয়ারি সংসদে ২০২০-২১ আর্থিক বছরের সাধারণ বাজেট পেশ করতে চেলেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। বর্তমানে গভীর সংকটের মধ্যে দিয়ে চলেছে ভারতীয় অর্থনীতি। অর্থমন্ত্রীর এই বাজেট ঘিরে শিল্প ও রাজনৈতিক মহলের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মধ্যেও আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। 

এর মধ্যেই জানা গিয়েছে, আসন্ন বাজেট প্রস্তাবে অন্তত ৫০টি পণ্যে আমদানি শুল্ক বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করতে পারেন নির্মলা। বাণিজ্য মন্ত্রক ও শিল্প সংস্থাগুলিকে নিয়ে গঠিত প্যানেলের সুপারিশ অনুসারে এক্ষেত্রে ৫ শতাংশ থেকে ১০ শতাংশ আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি করা হতে পারে।  যার জেরে মোবাইলের চার্জার, শিল্প সংস্থায় ব্যবৃত রাসায়নিক ল্যাম্প, কাঠের আসবাব, মোমবাতি, অলঙ্কার এবং আমদানি করা হস্তশিল্প সামগ্রীর দাম বাড়তে চলেছে।

ভারতের অধিকাংশ মোবাইল উৎপাদক সংস্থা এখনও বিদেশ থেকে চার্জার, রিঙ্গার সহ নানা যন্ত্রাংশ আমদানি করে। কেন্দ্রের নতুন সিদ্ধান্তে আমদানি শুল্ক বাড়লে তারা বিশেষভাবে প্রভাবিত হবে। যে কারণে আগামিদিনে স্মার্টফোনের দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।