রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড বা হ্যাল। সেই এইচএফ-২৪ মরুৎ থেকে হালের এলসিএ তেজস পর্যন্ত ভারতীয় প্রতিরক্ষায় একের পর এক সরঞ্জাম জুগিয়েছে এই রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা। কিন্তু, এখন সরকারি কোষাগারের এমনই হাল যে নরেন্দ্র মোদী সরকার এই গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রায়ত্ব প্রতিরক্ষা সংস্থারও প্রায় ১৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করতে চলেছে।

বুধবার বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ভারত সরকার হ্যাল সংস্থার প্রায় ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করবে। তার সঙ্গে সঙ্গে  আরও ৫ শতাংশ বিক্রির বিকল্প রাখা হচ্ছে। শেয়ার প্রতি ফ্লোর প্রাইস রাখা হয়েছে ১০০১ টাকা। এতে করে ১৫ শতাংশ শেযার বিক্রি করে ৫০২০ কোটি টাকা সরকারের হাতে আসবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। খুচরো বিনিয়োগকারীদের আবার অফারের মূল্যে ৫ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক মন্দার মুখোমুখি হয়েছে ভারত। আগেই অর্থনীতির হাল খারাপ ছিল, কোভিড মহামারি সেই ক্ষতে দিয়েছে নুনের ছিটে। এই অবস্থায় যত দিন যাবে পাকেচক্রে অর্থনীতির আরও পতন ঘটবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার আগে এই আর্থিক ঘাটতি পূরণে মোদির সরকার তহবিল সংগ্রহে নেমেছে।

উত্পাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে এই মাসের শুরুতেই ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছিল, সশস্ত্র বাহিনী ব্যবহার করে এমন শতাধিক সামরিক সরঞ্জামের আমদানি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার জায়গায় ভারতীয় সংস্থাদের কাছ থেকেই সেইসব অস্ত্রের ঘাটতি পূরণ করা হবে। এই অবস্থায় মোদী সরকার আশা করছে তাদের এই স্থানীয় সংস্থাগুলির কাছ থেকে অস্ত্র কেনার সিদ্ধান্ত এবং প্রতিরক্ষা আমদানি কমানোর সিন্ধান্ত হ্যাল-এর শেয়ার কেনার বিষয়ে বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করবে।