বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রথমে টুইটের মাধ্যমে ঘোষণা করা হয়েছিল যে, বৃহস্পতিবার বিকেল চারটে থেকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু সেই টুইটটি পরে থেকে মুছে দেওয়া হয়।

 

তবে শেষ পাওয়া খবর অনুসারে, রাত ৮'টা থেকেই সম্প্রচারিত হবে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ। অমিত শাহের পাশাপাশি অন্যান্য শীর্ষ নেতৃত্বের তরফেও টুইট করে সেই কথা ঘোষণা করেছেন। প্রসঙ্গত, সোমবার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা রদ এবং জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ-কে দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে গড়ে তোলার যে সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে নেওয়া হয়েছে, তা থেকে বিশিষ্ট মহলের তরফে অনুমান করা হচ্ছে যে জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যুতেই আজ বক্তব্য পেশ করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। 

 

প্রসঙ্গত সাম্প্রতিককালে একাধিক ইস্যুতে মোদী সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বা যে যে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন তাতে সাধারণ মানুষ তাঁর জবানিতেই এর ব্যাখ্যা শুনতে চায় বলে মনে করছিলেন পর্যবেক্ষকরা। পর্যবেক্ষকরা আরও মনে করছেন যে, আজ রাত ৮'টার পরই অনেক জট খুলে যেতে পারে বলেও মনে করছেন অনেকে। তবে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা এবং ৩৫এ ধারা রদ কেন করা হল, এতে করে কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ আদতে কতখানি উপকৃত হবে বা আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হওয়ারই বা কী সুবিধা সেই বিষয়েই ব্যাখ্যা দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী তাঁর এই বক্তৃতায়, বলে মনে করছেন অনেকে। 

প্রসঙ্গত, বুধবার সংসদের অধিবেশনের শেষ দিনে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সুষমা স্বরাজের আকস্মিক মৃত্যুতে সমস্ত পরিকল্পনা বাতিল করা হয়। বুধবার তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার পর ফের শুরু হয় জল্পনা। প্রসঙ্গত,এর আগে গত ২৭ মার্চ তারিখে শেষবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  ভারতের উপগ্রহ ধ্বংসকারী ক্ষেপণাস্ত্র এ-স্যাট প্রদর্শন উপলক্ষে দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছিলেন তিনি।