করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়ছে ভারত। এই অবস্থায় ঘোষণা করা হয়েছে নতুন শিক্ষানীতি। এই অবস্থায় ৬৮ তম মন কি বাত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন জাতীয় শিক্ষানীতির মূল উদ্দেশই হল খেলনা আর খেলার মাধ্যমেই শিশুদের পড়ার বিষয়ে আগ্রহী করে তোলা। তিনি আরও বলেন জাতীয় শিক্ষানীতিকে তাই খোলনার ওপর মনোনিবেশ করা হয়েছে। খেলতে খেলতে শেখা আর খেলনা তৈরিকেই পাঠ্যক্রমের একটি অঙ্গ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন খেলনা তৈরির বিশ্বব্যাপী চাহিদা পুরণের জন্য ভারতকে এগিয়ে আসতে হবে। বর্তমান বিশ্বে খেলনা শিল্পের পরিমাণ ৭ লক্ষ কোটটি টাকা। কিন্তু এখানে ভারতের লগ্নির পরিমাণ খুবই কম।  করোনাভাইরাসের কারণে এখনও পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দেশের অধিকাংশ শিশুই গৃহবন্দি। এই অবস্থায় লকডাউন চলাকালীনই তিনি শিশুদের কথা ভেবেছিলেন বলে জানিয়েছেন মন কি বাত অনুষ্ঠানে। আর সেই কারণেই খেলনা তৈরি হাব তৈরির জন্য আলোচনাও শুরু করেছেন বলেও জানিয়েছেন। খেলনা তৈরি শিল্পেই আত্মনির্ভর হতে হবে দেশকে, বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 


খেলনার মাধ্যমে শিশুদের পঠন পাঠনে আগ্রহী করার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর কথা প্রসঙ্গে এদিন তিনি উত্থাপন করেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কথা। তিনি বলেন কবিগুরুও উপলব্ধি করেছেন শিশুমনে খলনার গুরুত্ব। 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথায়, খেলনা শুধুমাত্র বিনোদনের শর্তই পুরণ করে না। শিশুদের মধ্যে সৃজনশীলতা বাড়াতেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করে। নতুন প্রজন্ম এখন এমন অনেক কিছুই তৈরি করতে সক্ষম যেগুলির মধ্যে দিয়ে সৃজনশীলতা প্রকাশ পায়।