ভারতীয় বিচার ব্যবস্থাকে নিয়ে প্রায় ছেলেখেলা শুরু করেছে ২০১২ সালের নির্ভয়া গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা। মুকেশ সিং-এর পর এবার আরও এক আসামি বিনয় শর্মা-ও বুধবার (২৯ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করলেন। আবেদনে বলা হয়েছে, মৃত্যুদণ্ডের আদেশ বাতিল করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হোক। মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ার নির্ধারিত দিনের ঠিক তিন দিন আগে এই আবেদন করা হল।

মুকেশকুমার সিং, পবন গুপ্তা এবং অক্ষয়-এর সঙ্গে বিনয় শর্মা-ও এখন তিহার জেলে বন্দি আছে। আগামি ১ ফেব্রুয়ারি তাদের একসঙ্গে ফাঁসি হওয়ার কথা। এর আগে মুকেশ কুমার সিং রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছিল। কিন্তু সেই আবেদন পত্রপাঠ খারিজ হয়ে যায়।

এরপর মঙ্গলবার তার আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে রাষ্ট্রপতির সেই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানান। দাবি করেন, তাঁর মক্কেল, যে সারা দেশে সাড়া ফেলে দেওয়া গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার অন্যতম আসামি, তাকে নাকি কারাগারে যৌন হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে। তবে তাদের এইসব যুক্তি ধোপে টেকেনি আদালত তার আবেদন খারিজ করে দেয়।

একবার প্রাণভিক্ষার আবেদন করে ফাঁসি পিছিয়ে দিতে সফল হয়েছিল আসামি পক্ষ। প্রথমে ২২ জানুয়ারি তাদের ফাঁসির দিন ঠিক ছিল। এইবার ফের দিন পিছনোর জন্য ভারতীয় বিচার ব্যবস্থার সুযোগ সুবিধাগুলি নিয়ে ছেলেখেলা শুরু করেছে নির্ভয়া মামলার আসামি ও তাদের আইনজীবীরা। আবারও কি ফাঁসি পিছিয়ে যাবে, সেটাই এখন দেখার।