গত মঙ্গলবার ৩ মার্চ ভোর ৬টায় ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল নির্ভয়াকাণ্ডের ৪ অপরাধীর। কিন্তু পবন গুপ্তা ফাঁসির আগের দিন রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করে। যার জেরে শেষপর্যন্ত স্থগিত করে দিতে হয় ফাঁসি। বুধবার পবনের সেই প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। 

সোমবার সুপ্রিমকোর্ট পবনের রায় সংশোধনের আর্জি খারিজ করার পর রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হয়েছিল তার আইনজীবী। এই আর্জির জন্যই নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি ৩ মার্চ কার্যকর করা যায়নি। তৃতীয়বারের জন্য পিছিয়ে যায় নির্ভয়ার চার ধর্ষকের ফাঁসি। বুধবার পবনের আবেদন  রাষ্ট্রপতি খারিজ করার পর এবার অবশ্য তার আইনজীবী প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারে। 

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি দিল্লির পাতিয়ালা আদালত ৩ মার্চ চার আসামী মুকেশ সিং, বিনয় শর্মা, অক্ষয় ঠাকুর ও পবন গুবন গুপ্তাকে ফাঁসি দেওয়ার কথা বলেছিল। আর আগেও দুবার তাদের ফাঁসির দিন ঘোষণা হয়েছিল। কিন্তু অপরাধীরা একে একে ক্ষমা প্রার্থনা করে আবেদন করায় সেই দিনগুলিতে ফাঁসি দেওয়া যায়নি। 

পবনের আগেই অক্ষয়, বিনয় ও মুকেশ রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছিল। সেই আর্জিও খারিজ হয়ে যায়।  এদিকে নির্ভয়ার ধর্ষকদের জন্য নতুন ফাঁসির দিন চেয়ে এদিন নির্ভয়ার বাবা-মার তরফে দিল্লির পাতিয়ালা আদালতে আবেদন করেন আইনজীবী সীমা কুশওয়া। চলতি মাসেই আদালত ফের ফাঁসির দিন ঘোষণা  করবে বলে আশা করছেন নির্ভয়ার বাবা।  যদিও কবে দোষীদের সাদা কার্যকর হবে সে বিষয়ে এখনও কিছু জানায়নি আদালত।