মঙ্গলবার রাতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আত্মনির্ভর ভারত অভিযান প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছেন। করোনা সংকটের বিরুদ্ধে লড়াই করতে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের কথাও ঘোষণা করে ছিলেন তিনি। এই টাকায় অভিবাসী শ্রমিক, দিন মজুর, ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের আর্থিকভাবে সহায়তা প্রদান করবে বলেও ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু এই আর্থিক প্যাকেজ অন্তঃসারশূণ্য বলেই মন্তব্য করেছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় পরপর কয়েকটি  মন্তব্য করেন। বলেন, আমরা সাবধানে যাচাই করে দেখব কে কী পায়? প্রথম থেকেই লক্ষ্য রাখা হবে দরিদ্র ক্ষুধার্ত ও বিধ্বস্ত অভিবাসী শ্রমিক, যাঁরা শত শত কিলোমিটার রাস্তা পার হয়ে নিজের রাজ্যে ফিরছেন। তাঁরা কী পেতে চলেছেন।  দেশের মোট জনসংখ্যার আর্ধেক অর্থাৎ ১৩ কোটি পরিবারের কাছে আসল টাকা পৌঁছায় কিনা তাও পরীক্ষা করে দেখা হবে। সর্ব শেষ ট্যুইটে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী বলেন, গতকাল প্রধানমন্ত্রী একটি শিরোনাম ও ফাঁকা পৃষ্ঠা উপহার দিয়েছেন। আজ ফাঁকা পৃষ্ঠা পুরণ করবেন দেশের অর্থমন্ত্রী। আর্থমন্ত্রী কী  কী ঘোষণা করেন সেই দিকেই তিনি তাকিয়ে রয়েছেন বলেও জানিয়েছেন। 

যে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে, তাই আজ বিস্তারিতভাবে জানাবেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। বিকেল ৪টে নাগাদ সাংবাদিক বৈঠকে তিনি জানাবেন কোন খাতে কত টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক প্যাকেজের মধ্যে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের আর্থিক সাহায্য ১ লক্ষ ৭৪ হাজার কোটি টাকাও রয়েছে। গতকালই নির্মলা সীতারমন সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছিলেন, আত্মনির্ভর ভারত অভিযান প্রকল্পে যে ২০ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে তা দেশের মোট জিডিপির ১০ শতাংশ। তিনি আরও বলেন তাঁদের সংকল্পই হল দেশকে আত্মনির্ভর করা। তাই তার জন্য যা যা প্রয়োজন হবে তাই সরবরাহ করা হবে। ভূমিকম্প প্রায় বিধ্বস্ত হয়ে যাওয়া কচ্ছকে (গুজরাত) যদি পুনরায় সমৃদ্ধশালী অঞ্চল হিসেবে তৈরি করা যায় তাহলে  দেশকেও সমৃদ্ধ করা সম্ভব।  আর সেই লক্ষ্যের দিকেই তাঁরা এগিয়ে চলেছেন বলেও জানিয়েছেন। 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ২৫ মার্চ থেকেই লকডাউনের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। দীর্ঘ লকডাউনের প্রায় বিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি। ইতিমধ্যেই কাজ হারিয়ে বহু দিনমজুর ও অভিবাসী শ্রমিক। প্রায় সর্বশান্ত হয়ে হাজার হাজার মাইল পথ পায়ে হেঁটেই বাড়ির দিকে রওনা দিয়েছেন তাঁরা। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে দেশের প্রায় ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতিকে জাগাতে ২০ লক কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর মূল লক্ষ্যই দেশের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়াদের আর্থিক সাহায্য প্রদান করা। তাই দেশের বহু মানুষই বিকেলে নির্মলার ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছেন।