যেটা হওয়ার ছিল সেটাই হল। রবিবার ন্যাশানাল ডেমোক্রেটিভ অ্যালায়েন্সের বৈঠকে জোটের নেতা নির্বাচিত হলেন নীতিশ কুমার। পাটনায় নীতিশ কুমারের সরকারি বাসভবনেই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দুপুর সাড়ে বারোটা থেকে এই বৈঠক আর সেখানেি ৬৯ বছরের নীতিশ কুমারে জোটের নেতা নির্বাচিত করা হয়। আগামিকাল অর্থাৎ সোমবার তিনি বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে  আরও একবার শপথ গ্রহণ করবেন। 

এনডিএর তরফ থেকে জানান হয়েছে বিধায়কদের সমর্থনের চিঠি রাজ্যপালকে পাঠান হয়েছে। আর রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে সরকার গঠনের দাবি জানান গেছে।  আগামিকাল বিকেলে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে বলেও জানান হয়েছে এনডিএর তরফ থেকে। নীতিশ কুমার এই নিয়ে চতুর্থবারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলাবেন। রবিবার সাংবাদিক বৈঠকের পর নীতিশ কুমার জানিয়েছেন,মন্ত্রিসভার বৈঠকই সিদ্ধান্ত নবে বিধানসভার অধিবেশন কখন ডাকা হবে। তিনি আরও বলেন বিহারের মানুষ উন্নয়নের স্বার্থেই তাঁদেরকে বেছে নিয়েছেন। আগামী দিনে নতুন সরকারও উন্নয়ন যজ্ঞ অব্যাহত রাখবে। 


এনডিএ-এর আগেই নীতিশ কুমারকে নেতা মনোনিত করেছিল তাঁর জনতা দল ইউনাইটেড। কিন্ত সদ্যোসমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে ফলাফলের ভিত্তিতে নীতিশের জেডিইউ তৃতীয় স্থানে পৌঁছে গেছে। একক বৃহত্ততম দলের তকমা পেয়েছে তেজস্বী যাদবের নেতৃত্বাধীন রাষ্ট্রীয় জনতা দল। আরজেডির থেকে মাত্র একটি আসন কম পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বিজেপি। এনডিএ জোটে বিজেপিই সবথেকে বড় দল। তাই রাজনৈতিক মহলের ধারনা নীতিশ কুমারকে মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়লেও বিজেপি নিজেদের হাতেই বিহারের রাজপাটের রাশ রেখেদেবে। মন্ত্রিসভাতেই বিজেপি প্রাধান্য দেখা যাবে বলে আশা করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।