প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা ইস্যুতে চিনের সঙ্গে বেশ কয়ের দফা আলোচনা হলেও এখনও পর্যন্ত কোনও অর্থবহ সমাধান সূত্র পাওয়া যায়নি। এদিন সংবাদ সংস্থা এনএনআইকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকালে একথা  স্বীকার করে নিয়েছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তবে তিনি জানিয়েছেন, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা এলাকায় সেনা হ্রাস করা হবে না। সীমান্তে ঝামেলা সৃষ্টিকারী কাউকে ছাড়ে দেওয়া হবে না বলেও স্পষ্ট করে বার্তা দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। 

এপ্রিল মাস থেকেই লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য ভারত একাধিকবার চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। অগাস্ট মাস থেকে জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা স্তরে আলোচনাশুরু হয়। কিন্তু তার আগেই চিন প্যাংগং লেক এলাকায় স্থিতাবস্থা পরিবর্তন করে ফেলে। সেই কথা স্মরণ করে রাজনাথ সিং বলেন এটা ঠিক যে এখনও পর্যন্ত ভারত আলোচনায় বিশ্বাস রেখেছে। ভারত ও চিনেক মধ্যে স্থবিরতা হ্রাস করার জন্য এখনও পর্যন্ত বেশ কয়েক দফা সামরিক ও কূটনৈতিক বৈঠক হয়েছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত বলার মত কোনও সমাধানসূত্র পাওয়া যায়নি। 


রাজনাথ সিং আরও বলেন স্থিতাবস্থা মোটেও একটি ইতিবাচক উন্নয়ন নয়। কথাবার্তা চলছে। তা থেকেই একটি ইতিবাচক সাফল্য পাওয়া যাবে বলেও কেন্দ্রীয় সরকার প্রত্যাশা করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। দুই দেশের কমান্ডার পর্যায়ের নবম বৈঠক খুব তাড়াতাড়ি অনুষ্ঠিত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন । একই সঙ্গে ডাব্লুএমসিসি সম্পর্কে কার্যনির্বাহী পরামর্শ ও সমন্বয় বৈঠকও খুব তাড়াতাড়ি অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন ১৮ ডিসেম্বর ডাব্লুএমসিসির বৈঠকের পর সংশ্লিষ্ট অধিকর্তা জানিয়েছেন ভারত-চিন দুই দেশই কূটনৈতিক ও সামরিক পর্যায়ের কথাবার্তা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষেই মতামত দিয়েছে।  

রাজনাথ সিং এদিন স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন, চিন আর পাকিস্তান ঐক্যবদ্ধভাবে  ভারতীয় সীমান্তে সমস্যা তৈরি করছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা নিয়ে তিনি এখনও কিছু বলতে পারবেন না। কিন্তু সীমান্ত রক্ষায় ভারত যে বদ্ধপরিকর আরও একবার স্পষ্ট করে দেন।তবে প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে ভারত সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায় বলেও জানিয়েছেন তিনি। পাকিস্তান প্রসঙ্গে তিনি বলেন জন্মলগ্ন থেকেই প্রতিবেশী দেশটি ভারতীয় সীমান্ত সমস্যা তৈরি করে এসেছে। এখনও পর্যন্ত তা অব্যাহত রয়েছে। পাকিস্তানের সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙঘন নিয়েও মুখ খোলেন তিনি। বলেন ভারত প্রতিবারই উচিৎ জবাব দিয়েছে। সীমান্তের এপারে শুধু নয় ওপারে গিয়েও ভারতীয় জওয়ানরা শিক্ষা দিয়ে এসেছে। কিন্তু তারপরেও দেশটি তার নীতিতে কোনও রকম বদল আনেনি।